বাসস দেশ-৩৫ : ২৫ মার্চের গণহত্যার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি দাবি জানিয়েছে ১৪ দল

266

বাসস দেশ-৩৫
১৪ দল-সভা
২৫ মার্চের গণহত্যার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি দাবি জানিয়েছে ১৪ দল
ঢাকা, ২৫ মার্চ, ২০১৯ (বাসস) : কেন্দ্রীয় ১৪ দলের নেতৃবৃন্দ ২৫ মার্চের গণহত্যার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি দাবি করেছেন।
আজ সোমবার বিকেলে রাজধানীর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে গণহত্যা দিবস উপলক্ষে কেন্দ্রীয় ১৪ দল আয়োজিত সমাবেশে এক বক্তরা জাতিসংঘের কাছে এই দাবি জানান।
নেতারা বলেন, ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ কালো রাতে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর বর্বর গণহত্যা বিশ্বের যে কোন গণহত্যার চেয়েও ভয়াবহ। স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি জামায়াতের সহায়তায় ইতিহাসের সবচেয়ে বর্বর হত্যাকান্ড চালায় পাকিস্তানি সেনারা। তাই এই হত্যাকান্ডের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি দিতে হবে।
আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য ও ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম বলেন, আমাদের লড়াই শেষ হয়নি। এ লড়াই অনন্তকাল চলবে। স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তি বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ভুলণ্ঠিত করেছেন। ৭২ এর সংবিধান ছিন্নভিন্ন করে বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের আশ্রয় প্রশ্রয় দিয়েছেন। তাই তাদের দল ও দোসরদের এ দেশে থাকার কোনো অধিকার নেই।
আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, আন্দোলন সংগ্রামের মধ্য দিয়ে জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছিলেন। পাকিস্তানি শাসকরা ভীত হয়ে ২৫ মার্চ কালো রাতে গণহত্যা চালায়।
তিনি বলেন, আক্ষেপের সঙ্গে বলতে হয়, পৃথিবীর ইতিহাসে বৃহত্তর গণহত্যার স্বীকৃতি দেয়নি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়। ৩০ লাখ মানুষ হত্যা পৃথিবীর সর্ববৃহৎ গণহত্যা। আন্তর্জাতিক স্বীকৃতির দাবি জানিয়ে পাকিস্তানী শাসক ও সেনাদের বিচারের মুখোমুখি করতে হবে।
সাবেক খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম বলেন, ৭১ এর ঘাতকদের বাংলাদেশে থাকার কোনো অধিকার নেই। চিরতরে রাজনীতি থেকে তাদেরকে খতম করতে হবে। বিএনপি-জামায়াত অপশক্তি খতম না হওয়া পর্যন্ত লড়াই চলবে, আজকের গণহত্যার এ দিবসে তাদেরকে খতম করার শপথ নিতে হবে।
সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়–য়ার সভাপতিত্বে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদের সভাপতি হাসানুল হক ইনু, আওয়ামী লীগ নেতা মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
এর আগে নেতৃবৃন্দ ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ কালো রাতে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর বর্বর গণহত্যায় জীবনদানকারী শহীদদের স্মরণে রাজধানীর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের শিখা চিরন্তনে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।
বাসস/বিকেডি/১৯৪৫/আরজি