বাসস ক্রীড়া-৯ : রশিদের স্পিন ভেল্কিতে তছনছ বাংলাদেশ পড়ে ৮ উইকেটে ১৩৪ রান করেছে বাংলাদেশ

574

বাসস ক্রীড়া-৯
ক্রিকেট-টি-২০
রশিদের স্পিন ভেল্কিতে তছনছ বাংলাদেশ পড়ে ৮ উইকেটে ১৩৪ রান করেছে বাংলাদেশ
দেরা দুন (ভারত), ৫ জুন, ২০১৮ (বাসস) : দেরাদুনে আফগানিস্তানের বিপক্ষে তিন ম্যাচ টি-২০ সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৮ উইকেটে ১৩৪ রান। আফগান স্পিনার স্পিনার রশিদ খান শিকার করেন ৪ উইকেট। দ্বিতীয় ম্যাচে আজ টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং করে এই মামুলি সংগ্রহ দাঁড় করাতে সক্ষম হয় টাইগাররা।
আগের ম্যাচে টস জিতে ফিল্ডিং নিয়েছিলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। রান চেজ করতে নেমে ব্যর্থ হয়েছে সাকিবের দল। দ্বিতীয় ম্যাচেও টস জেতেন সাকিব। তবে এবার প্রথমে ব্যাট করার সিদ্বান্ত নেন তিনি। দলনায়কের সিদ্বান্তের প্রতিদান দিতে পারেননি বাংলাদেশের ওপেনার লিটন দাস। দ্বিতীয় ওভারের প্রথম বলে নামের পাশে ১ রান করে বাঁ-হাতি পেসার শাপুর জাদরানের শিকার হন লিটন।
ব্যাটিং-এ প্রমোশন পেয়ে তিন নম্বরে ব্যাট হাতে নামেন সাব্বির রহমান। আগের ম্যাচে প্রথম বলেই বিদায় নেয়া আরেক ওপেনার তামিম ইকবালকে নিয়ে ইনিংস মেরামতের চেষ্টা করেন সাব্বির। মারমুখী মেজাজেই এগোচ্ছিলেন তারা। কিন্তু আফগান অফ-স্পিনার মোহাম্মদ নবীর বুদ্ধিদীপ্ত বোলিং ও ফিল্ডিং-এর কাছে আত্মসমর্পন করেন সাব্বির। ৩টি চারে ৯ বলে ১৩ রান করেন তিনি। তামিমের সাথে ২০ বলে ২৯ রান যোগ করেন সাব্বির।
দলীয় ৩০ রানে সাব্বির ফিরে গেলে উইকেটে তামিমের সঙ্গী হন মুশফিকুর রহিম। উইকেটের সাথে দ্রুত মানিয়ে নিয়ে তামিমের সাথে রানের গতি বাড়াতে থাকেন মুশি। ফলে বাংলাদেশের বড় স্কোরের পথ মসৃন হতে থাকে। কিন্তু দশম ওভারের শেষ বলে বাংলাদেশ শিবিরে আবারো আঘাত নবী। ১টি করে চার ও ছক্কায় ১৮ বলে ২২ রান করেন মুশফিকুর।
৭৫ রানে ৩ উইকেট হারানোর পরও বাংলাদেশের বড় স্কোরের পথ খোলা ছিলো। কিন্তু শেষ বোলার হিসেবে আক্রমনে এসে বাংলাদেশের পরের দিকের ব্যাটসম্যানদের বেকাদায় ফেলে দেন টি-২০ ফরম্যাটের শীর্ষ বোলার রশিদ খান।
তামিম-সাকিব আল হাসান-সৌম্য সরকার ও মোসাদ্দেক হোসেনকে শিকার করে বাংলাদেশকে লড়াই করার পুঁিজও সংগ্রহ করতে দেননি রশিদ। তামিম ৫টি চারে ৪৮ বলে সর্বোচ্চ ৪৩, সাকিব ৩, সৌম্য ৩ ও মোসাদ্দেক শুন্য হাতে ফিরেন। শেষদিকে আবু হায়দারের ১৪ বলে অপরাজিত ২১ রানে সম্মানজনক পুঁিজ পায় বাংলাদেশ। হায়দারের ইনিংসে ১টি চার ও ২টি ছক্কা ছিলো। রশিদ ৪ ওভারে ১২ রানে ৪ উইকেট নেন।
বাসস/এএমটি/২২৩০/স্বব