বাসস রাষ্ট্রপতি-২ : জাতীয় স্বার্থকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিতে মিডিয়ার প্রতি আহ্বান রাষ্ট্রপতির

527

বাসস রাষ্ট্রপতি-২
আবদুল হামিদ-মিডিয়া
জাতীয় স্বার্থকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিতে মিডিয়ার প্রতি আহ্বান রাষ্ট্রপতির
ঢাকা, ৩০ মে, ২০১৮ (বাসস) : রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ সংবাদ ও অভিমত পরিবেশনায় জাতীয় স্বার্থকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিতে সাংবাদিকদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।
রাষ্ট্রপতি আজ আগারগাঁওয়ে মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর মিলনায়তনে ‘বজলুর রহমান স্মৃতি পদক- ২০১৭’ প্রদান অনুষ্ঠানে বলেন, সংবাদপত্র ও ইলেকট্রোনিক মিডিয়া এখন পূর্ণ স্বাধীনতা ভোগ করছে।
তথ্যের অবাধ প্রবাহ ও মতামত প্রকাশে মিডিয়ার অবদানের উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতি বলেন, গঠনমূলক সমালোচনা ও যথাযথ সিদ্ধান্ত গ্রহণে গণমাধ্যমের রয়েছে ব্যাপক ভূমিকা।
তিনি বলেন, গণমাধ্যম ও গণতন্ত্র পরস্পরের পরিপূরক। সংবাদপত্রে সবসময় জনমতের প্রতিফলন ঘটে।
রাষ্ট্রপতি দৈনিক সংবাদ সম্পাদক ও কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরীর স্বামী মরহুম বজলুর রহমানের অবদানের কথা স্মরণ করে বলেন, বজলু ভাই একজন সৎ ও সাহসী সাংবাদিক হিসেবে সারা জীবন জনগণের অধিকার, অসাম্প্রদায়িকতা, ন্যায় বিচার ও শোষণমুক্ত সমাজ প্রতিষ্ঠার সংগ্রাম করেছেন।
মরহুম বজলুর রহমানের অসাম্প্রদায়িক, প্রগতিশীল ও বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতার ভূয়সী প্রশংসা করে রাষ্ট্রপতি হামিদ বলেন, বজলুর রহমান আজো সাংবাদিকতায় এক আদর্শ।
বজলুর রহমান পদক প্রাপ্তদের অভিনন্দন জানিয়ে রাষ্ট্রপতি আশা পোষণ করেন যে, এই অর্জন নতুন প্রজন্মকে মুক্তি সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত ইতিহাস জানতে সহায়তা করবে।
আবদুল হামিদ বলেন, তিনি (বজলুর রহমান) সবসময় মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও অসাম্প্রদায়িক আদর্শ পালন করেছেন। তিনি কখনো অসৎ ও রাষ্ট্রবিরোধী কর্মকা-ের সঙ্গে আপোষ করেননি।
ভাষণের শুরুতে রাষ্ট্রপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং মুক্তিযুদ্ধ ও অন্যান্য গণতান্ত্রিক আন্দোলনে শহীদদের স্মরণ করেন।
মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক রিপোর্টিংয়ের জন্য প্রিন্ট মিডিয়ায় দৈনিক যুগান্তরের রীতা ভৈৗমিক ও ইলেকট্রোনিক মিডিয়ায় চ্যানেল আই’র সোমা ইসলাম এই পদক পেয়েছেন।
মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘর ২০০৮ সালে বিশিষ্ট সাংবাদিক দৈনিক সংবাদ সম্পাদক ও মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক বজলুর রহমানের নামে এই পদক চালু করে।
মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘর আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক।
মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এমপি, সংসদ সদস্যবৃন্দ, রাজনৈতিক, জাদুঘর ট্রাস্টি বোর্ড ও জুরী বোর্ডের সদস্য,পদস্থ বেসামরিক ও সামরিক কর্মকর্তা এবং রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট সচিববৃন্দ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।
বাসস/এসআইআর/এমএসআই/১৮২০/মমআ/-আসচৌ