বাসস দেশ-১৭ : শেখ হাসিনার উন্নয়নের গাড়ি পূর্ণ গতিতে চলছে : সংস্কৃতিমন্ত্রী

149

বাসস দেশ-১৭
নূর-নির্বাচনী-সভা
শেখ হাসিনার উন্নয়নের গাড়ি পূর্ণ গতিতে চলছে : সংস্কৃতিমন্ত্রী
নীলফামারী, ২৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ (বাসস) : সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর দেশের চলমান উন্নয়নের গতি ঠিক রাখার জন্য আবারো নৌকায় ভোট দেয়ার জন্য জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।
আজ বুধবার নীলফামারী-২ (সদর) আসনে মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে ইটাখোলা ইউনিয়নে বিভিন্ন নির্বাচনী পথসভায় তিনি এসব কথা বলেন।
আসাদুজ্জামান নূর বরেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের গাড়ি এখন পূর্ণ গতিতে চলছে। নূতন কেউ আসলে সে গাড়িটা থেমে যাবে। আর যারা আসবেন তাদের গাড়ি চালু হবে কিনা সেটি নিয়েও সন্দেহ আছে। কারণ এর আগে তাদের গাড়ি পেছন গিয়ারে চলেছে।’
নীলফামারী-২ আসনে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোটের প্রার্থী আসাদুজ্জামান নূর পথে পথে নির্বাচনী প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন।
বুধবার সকাল থেকে তিনি ইটাখোলা ইউনিয়নের পশ্চিমপাড়া ক্লাব, মাস্টারপাড়া, নাহিন অ্যাগ্রো, ফতের মোড়, সিংদই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠ, উত্তর কানিয়ালখাতা নি¤œ মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠ, কানিয়ালখাতা গাবেরতল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠ, বাদিয়ার মোড়সহ বিভিন্ন পাড়া মহল্লায় পথসভা করেন তিনি। এসব পথসভায় যাওয়া আসার পথে রাস্তার ধারে বিভিন্ন নারী-পুরুষ ভোটারদের সঙ্গে কথা বলেন।
এসময় আসাদুজ্জামান নূর বলেন, ‘নৌকায় ভোট দিলে শুধু শেখ হাসিনাই জিতবেনা, জিতবে বাংলাদেশ, উন্নয়নের ধারায় জিতবেন আপনারা। আর জামায়াত-বিএনপির একটাই অস্ত্র, সেটা হলো ধর্ম বা ইসলাম। তারা ইসলামের নামে কথা বলে ক্ষমতায় এসে লুটপাট করেছে। বিরোধী দলে থেকে হরতাল অবরোধের নামে জ্বালাও পোড়াও করেছে, মানুষ খুন করেছে।’
আওয়ামী লীগ শান্তির রাজনীতি করে, মানুষের উন্নয়নের রাজনীতি করে উল্লেখ করে আওয়ামী লীগ নেতা নূর বলেন, ‘শেখ হাসিনা ক্ষমতার গত ১০ বছরে দেশের ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। এর সুফল আপনারা ভোগ করছেন। আমাদেরকে এখানেই থেমে থাকলে হবেনা, আরো উন্নয়ন করতে হবে।’ এ সময় নীলফামারীর উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে ভবিষ্যৎ উন্নয়ন পরিকল্পনার কথায় অর্থনৈতিক জোন ও হাইটেক পার্ক এবং চিলাহাটি স্থলবন্দর বাস্তবায়নের কথা জানান তিনি।
এসব অনুষ্ঠানে আসাদুজ্জামান নূরের সঙ্গে ছিলেন, ইটাখোলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাফিজুর রশিদ মঞ্জু, মশিউর রহমান ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ সারোয়ার মানিক, ইটাখোলা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান হেদায়েত আলী শাহ ফকিরসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।
বাসস/সংবাদদাতা/এমএন/১৮৫০/কেএমকে