বাসস ক্রীড়া-৫ : সাঙ্গাকারাকে কৃতিত্ব দিলেন ম্যাথুজ

171

বাসস ক্রীড়া-৫
ক্রিকেট-ম্যাথুজ
সাঙ্গাকারাকে কৃতিত্ব দিলেন ম্যাথুজ
ওয়েলিংটন, ২২ ডিসেম্বর, ২০১৮ (বাসস) : ইনিংস হারের মুখে দাঁড়িয়ে দুর্দান্ত ব্যাটিং শৈলি প্রদর্শন করে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়েলিংটন টেস্টে শ্রীলংকাকে ড্র’র স্বাদ দেন সফরকারী দলের দুই ব্যাটসম্যান কুশল মেন্ডিস ও সাবেক অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ। দ্বিতীয় ইনিংসে চতুর্থ উইকেটে ২৭৪ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি গড়েন মেন্ডিস ও ম্যাথুজ। মেন্ডিস ১৪১ ও ম্যাথুজ ১২০ রানে অপরাজিত থাকেন। নিজের এমন ইনিংসের জন্য আরেক সাবেক অধিনায়ক কুমার সাঙ্গাকারাকে কৃতিত্ব দিলেন ম্যাথুজ। তিনি বলেন, ‘প্রথম টেস্টের আগে সাঙ্গার সাথে দীর্ঘক্ষণ চ্যাট করেছি আমি। আমাকে অনেক টিপস দিয়েছেন সাঙ্গা। যা আমাকে বড় ইনিংস খেলতে সহায়তা করেছে।’
সিরিজের প্রথম টেস্টে টস হেরে প্রথমে ব্যাটিং করতে নামে শ্রীলংকা। ম্যাথুজের ৮৩, উইকেটরক্ষক নিরোশান ডিকবেলার ৮০ ও দিমুথ করুনারতেœর ৭৯ রানের পরও ২৮৩ রানে গুটিয়ে যায় শ্রীলংকা। তবে টম লাথামের রেকর্ড অপরাজিত ২৬৪ রানের সুবাদে ৫৭৮ রানের পাহাড় গড়ে নিউজিল্যান্ড। ফলে প্রথম ইনিংস থেকে ২৯৫ রানের লিড পায় কিউইরা।
ইনিংস হার এড়াতে দ্বিতীয় ইনিংসে অন্তত ২৯৫ রান করতে হবে শ্রীলংকাকে। কিন্তু দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করে ১৩ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে মহাবিপদেই পড়ে যায় লংকানরা। এ অবস্থায় এমন পরিস্থিতির মুখে পড়েন মেন্ডিস ও ম্যাথুজ। তবে ৩ উইকেটে ২০ রান তুলে তৃতীয় দিনের খেলা শেষ করেন মেন্ডিস ও ম্যাথুজ।
চতুর্থ দিন ব্যাট হাতে নিজেদের কারিশমা দেখান মেন্ডিস ও ম্যাথুজ। পুরো দিন ব্যাট করেন তারা। ফলে দলের স্কোর ৩ উইকেটে ২৫৯ রানে পৌঁছে যায়। এ দিন দু’জনই সেঞ্চুরির স্বাদ নেন। তবে পঞ্চম দিন বৃষ্টি দাপট দেখায় টেস্টে। ফলে ঐদিন খেলা হয় মাত্র ১৩ ওভার। তাই মেন্ডিস-ম্যাথুজের তান্ডবের পর বৃষ্টির সহায়তায় টেস্টটি ড্র করে শ্রীলংকা।
ম্যাচ শেষে এখন মেন্ডিস-ম্যাথুজ বন্দনা শ্রীলংকা জুড়ে। এর মাঝে নিজের দুর্দান্ত ব্যাটিং-এর কারনে সাঙ্গাকারাকে ধন্যবাদ দেন ম্যাথুজ। তিনি বলেন, ‘এই টেস্টের আগে সাঙ্গাকারার সাথে আমি কথা বলি। কারন এই ওয়েলিংটনে আমাদের শেষ ম্যাচে ডাবল-সেঞ্চুরি করেছিলেন সাঙ্গা। আমি শুধুমাত্র তার কাছ টিপস নিতেই সাঙ্গার সাথে কথা বলি। আমি তার কাছে জানতে চেয়েছিলাম, এখানে কিভাবে ভালো খেলেছিলো সে এবং বড় ইনিংস খেলা উপায় কি? সাঙ্গা ভিন্ন ভিন্ন বোলার সর্ম্পকে ভিন্ন ভিন্ন ধারনা দেয় এবং শট সিলেকশন সর্ম্পকে আমাকে বিস্তর ধারনা দেয়। এছাড়া কোন বোলারকে কিভাবে সামলাতে হবে, সেটিও সে বলে দেয়। তার টিপসের সাথে আমার অভিজ্ঞতার মিশলে মাঠে নিজের সেরাটা দিতে পারি আমি। সাঙ্গার টিপস আমার অনেক বেশি কাজে লেগেছে।’
তরুণ তুর্কি মেন্ডিসের সাথে তিন সেশনেরও বেশি সময় ক্রিজে কাটিয়েছে ম্যাথুজ। মেন্ডিসের সাথে তার বোঝাপড়াটা ভালো ছিলো বলে জানান ম্যাথুজ, ‘আমরা ক্রিজে অনেক বেশি কথা বলেছি। নিজেদের উইকেটে টিকিয়ে রাখার পরিকল্পনা করেছিলাম। মেন্ডিস নিজের সেরাটা দিয়েছে। ঐ পরিস্থিতিতে দীর্ঘক্ষণ ব্যাট করা সত্যিই কঠিন ছিলো। কিন্তু আমরা তিন সেশন ব্যাট করেছি। যা দলের জন্য সহায়ক হয়েছে। তার সাথে আমার ভালো জমেছিলো। তরুন খেলোয়াড় হিসেবে মেন্ডিসের এমন পারফরমেন্স মুগ্ধ করেছে আমাকে।’
নিউজিল্যান্ড বোলাররা শ্রীলংকার ব্যাটসম্যানদের বুক টার্গেট করে বল করছিলো বলে জানান ম্যাথুজ। তারপরও কিউই বোলারদের ডেলিভারিগুলো ঠান্ডা মাথায় সামাল দিতে চেয়েছেন মেন্ডিস ও ম্যাথুজ। ম্যাথুজ বলেন, ‘তারা আমাদের বুক টার্গেট করে বল করে গিয়েছে। মেন্ডিসের সাথে কথা বলে ঠিক করেছি, বাউন্সের বলগুলোতে আমরা আগ্রাসী হবো না এবং খুব বেশি পুশ করার চেষ্টা করবো না। আমরা ঠান্ডা মাথায় খেলতে পেরেছি বলেই তাদের পরিকল্পনা সফল হয়নি।’
আগামী ২৬ ডিসেম্বর থেকে ক্রাইস্টচার্চে শুরু হবে শ্রীলংকা-নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট।
বাসস/এএসজি/এএমটি/১১০০/স্বব