মানুষ আর ধ্বংস-ফ্যাসাদ চায় না : আইনমন্ত্রী

575

ঢাকা, ১৮ ডিসেম্বর, ২০১৮ (বাসস) : আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, বাংলাদেশের সকল মানুষ চায় উন্নয়ন ও অগ্রগতি। দেশের মানুষ আর ধ্বংস-ফ্যাসাদ চায় না।
তিনি বলেন, ত্রিশ লক্ষ শহীদের রক্তের বিনিময়ে স্বাধীনতা পেয়েছি, সেই স্বাধীনতা কাউকে নস্যাৎ করতে দেয়া হবে না। স্বাধীনতা যেন আরো উজ্জ্বল হয় এবং শহীদদের মর্যাদা যেন আরও বাড়ে সবাইকে সেই চেষ্টা করতে হবে।
আজ রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি আয়োজিত মুক্তিযুদ্ধের চেতনার স্বপক্ষের আইনজীবীদের জাতীয় সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।
আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রথম চেয়ারম্যান বিচারপতি মো.নিজামুল হক নাসিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে সাবেক প্রধান বিচারপতি মো. তাফাজ্জাল ইসলাম, বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক, লেখক ও সাংবাদিক শাহরিয়ার কবির, অ্যাডভোকেট রানাদাশ গুপ্ত প্রমুখ বক্তৃতা করেন।
আনিসুল হক বলেন, দেশের মানুষ এখন শান্তিতে আছে এবং তাদের এখন অন্যের কাছে ভিক্ষা করতে হয় না। সেই অবস্থায় তারা পৌঁছেছে। এটাকে আমাদের ধরে রাখতে হবে। শুধু ধরে রাখলে হবে না, সেটাকে আরো একধাপ এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে।
তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর কন্যা উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে সারা বিশে^ আমাদেরকে পরিচিত করে দিয়েছেন। আমরা চাই তাঁর নেতৃত্বে ২০২১ সালে বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশ হোক। আমরা চাই ২০৪১ সালে বাংলাদেশ শেখ হাসিনার স্বপ্নের উন্নত দেশ হোক। এই পরিকল্পনা নিয়ে আমরা যদি এগিয়ে যাই তাহলে আসছে ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে যুদ্ধাপরাধীদের স্বপক্ষের দলকে পরাজিত করতে হবে। তাদেরকে নির্মূল করতে হবে।
তিনি বলেন, এই নির্বাচনে স্বাধীনতার পক্ষের ও স্বাধীনতার বিরোধীদের মধ্যে যুদ্ধ হচ্ছে। এই নির্বাচনে আমাদের স্বাধীনতা বিরোধীদের প্রত্যাখান করতেই হবে।
তিনি বলেন, শেখ হাসিনা ২১০০ সালে বাংলাদেশের উন্নয়নের পরিকল্পনা দিয়েছেন। তিনি ছাড়া আর কেউ বাংলাদেশকে নিয়ে ২১০০ সালের পরিকল্পনা দেয় নাই। তাই এই নেতৃত্বকেই আমাদের ধরে রাখতে হবে। এই নেতৃত্বের হাত শক্ত করতে হবে।