বাসস রাষ্ট্রপতি-২ : প্রতিবন্ধীদের সুন্দর ও স্বাভাবিক পরিবেশে বেড়ে উঠা নিশ্চিত করতে হবে : রাষ্ট্রপতি

317

বাসস রাষ্ট্রপতি-২
রাষ্ট্রপতি- প্রতিবন্ধী দিবস
প্রতিবন্ধীদের সুন্দর ও স্বাভাবিক পরিবেশে বেড়ে উঠা নিশ্চিত করতে হবে : রাষ্ট্রপতি
ঢাকা, ২ ডিসেম্বর, ২০১৮ (বাসস) : রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ প্রতিবন্ধীদের সুন্দর ও স্বাভাবিক পরিবেশে বেড়ে ওঠার সুযোগ করে দিতে সবার সম্মিলিত প্রয়াস অব্যাহত রাখার আহবান জানিয়েছেন। আগামীকাল ৩ ডিসেম্বর আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবস উপলক্ষে আজ এক বাণীতে এ আহবান জানান।
সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় থেকে ২৭তম আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবস ও ২০তম জাতীয় প্রতিবন্ধী দিবস উদযাপনের উদ্যোগকে রাষ্ট্রপতি স্বাগত জানান। প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের মর্যাদা ও অধিকার প্রতিষ্ঠায় এ আয়োজন কার্যকর ভূমিকা রাখবে তিনি উল্লেখ করেন।
রাষ্ট্রপতি বলেন, প্রতিবন্ধী ব্যক্তি আমাদের আপনজন। তাদেরও সকলের ন্যায় মৌলিক চাহিদা পূরণ, স্বাভাবিক ও সম্মানজনক জীবনযাপনের অধিকার রয়েছে।’
তিনি বলেন, জাতিসংঘ ঘোষিত টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রায় ‘কাউকে পেছনে ফেলে বা বাদ দিয়ে নয়’ এ প্রতিশ্রুতির মাধ্যমে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের বিশেষ গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। এ বছর ২৭তম আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবসের প্রতিপাদ্য নির্ধারিত হয়েছে ‘সাম্য ও অভিন্ন যাত্রায় প্রতিবন্ধী মানুষের ক্ষমতায়ন’, যা বর্তমান প্রেক্ষাপটে যথার্থ হয়েছে।
আবদুল হামিদ বলেন, প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের শারীরিক, মানসিক ও বুদ্ধিবৃত্তিক প্রতিবন্ধকতার কারণে তাদের চলাফেরা ও কাজে কর্মে পারিবারিক, সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় সহযোগিতার প্রয়োজন হয়। এ লক্ষ্যে সরকার ইতোমধ্যে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অধিকার সুরক্ষা আইন, ২০১৩ ও নিউরোডেভেলপমেন্টাল প্রতিবন্ধী সুরক্ষা ট্রাস্ট আইন, ২০১৩, ডিসঅ্যাবিলিটি কাউন্সিল অ্যাক্ট ২০১৮ প্রণয়ন করেছে। পাশাপাশি সামাজিক সুরক্ষা কর্মসূচির আওতায় অস্বচ্ছল প্রতিবন্ধী ভাতা, প্রতিবন্ধী শিক্ষা উপবৃত্তি প্রদান এবং প্রতিবন্ধী সেবা ও সাহায্যকেন্দ্র প্রতিষ্ঠা প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের মানসিক উন্নয়ন ও সমৃদ্ধ জীবন গঠনের পথকে প্রসারিত করছে।
তিনি বলেন, প্রতিবন্ধীরা সমাজের বোঝা নয়। উপযুক্ত শিক্ষা ও প্রশিক্ষণের সুযোগ পেলে তারাও দক্ষতা ও পারদর্শিতার মাধ্যমে দেশের উন্নয়নে শামিল হতে পারে। প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জীবনমান উন্নয়নে সরকারের পাশাপাশি সমাজ ও পরিবারেরও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে।
তিনি ২৭তম আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবস ও ২০তম জাতীয় প্রতিবন্ধী দিবসের সব কর্মসূচির সার্বিক সফলতা কামনা করেন।
বাসস/তবি/এমআর/১৮১৫/কেএমকে