ঢাকা-১৩ ও ৬ আসনসহ ইভিএমের ছয়টি আসনের নাম ঘোষণা

307

ঢাকা, ২৬ নভেম্বর, ২০১৮ (বাসস) : আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটগ্রহণের জন্য ছয়টি আসন দ্বৈবচয়নের মাধ্যমে চূড়ান্ত করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।
আসনগুলো হলো-ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ঢাকা-১৩, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ঢাকা-৬, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের চট্টগ্রাম-৯, রংপুর-৩, খুলনা-২, রংপুর ও সাতক্ষীরা-২। এ আসনগুলোর সবগুলো কেন্দ্রে ইভিএমে ভোটগ্রহণ করা হবে।
নির্বাচন ভবনে সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে কম্পিউটার প্রোগ্রামিংয়ের মাধ্যমে আজ বিকেলে কার্যক্রমটি সম্পন্ন করে নির্বাচন কমিশন। এ সময় ইসি সচিবালয়ের সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ, অতিরিক্ত সচিব মোখলেছুর রহমানসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে ৪৮টি শহর ও সিটি কর্পোরেশন এলাকাকে দ্বৈবচয়ন পদ্ধতির জন্য বাছাই করা হয়। আসনগুলো হলো-ঠাকুরগাঁও-১, দিনাজপুর-৩, নীলফামারী-২, লালমনিরহাট-৩, রংপুর-৩, গাইবান্ধা-২, বগুড়া-৬, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩, নওগাঁ-৫, রাজশাহী-২, পাবনা-৫, কুষ্টিয়া-৩, খুলনা-২ ও ৩, সাতক্ষীরা-২, ভোলা-১, বরিশাল-৫, টাঙ্গাইল-৫, জামালপুর-৫, শেরপুর-১, ময়মনসিংহ-৪, ঢাকা-৪, ৫, ৬, ৭, ৮, ৯, ১০, ১১, ১২, ১৩, ১৫, ১৬, ১৭ ও ১৮, গাজীপুর-২, নরসিংদী-১ ও ২, নারায়ণগঞ্জ-৪ ও ৫, ফরিদপুর-৩, মাদারীপুর-১, সিলেট-১, কুমিল্লা-৬, ফেণী-২ এবং চট্টগ্রাম-৯, ১০ ও ১১।
ঢাকা উত্তর থেকে একটি, ঢাকা দক্ষিণ থেকে একটি, চট্টগ্রামে একটি, অন্য সিটির মধ্যে দু’টি এবং অন্য পৌর এলাকার মধ্যে একটি, এই ছয়টি ক্যাটাগরিতে দ্বৈবচয়ন অনুষ্ঠিত হয়। ইসির আইসিটি বিভাগ পুরো প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন করে। এবারই প্রথম সংসদ নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার করা হবে। এর আগে সিটি করপোরেশনসহ স্থানীয় সরকারগুলোতে এই ভোটযন্ত্রের ব্যবহার করেছে ইসি। ২০১০ সালে এটিএম শামসুল হুদার নেতৃত্বাধীন কমিশন দেশে প্রথমবারের মতো ইভিএমে ভোটগ্রহণের প্রচলন করে।
আগামী ৩০ ডিসেম্বর সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় ২৮ নভেম্বর। মনোনয়নপত্র বাছাই ২ ডিসেম্বর। প্রার্থিতা প্রত্যাহার ৯ ডিসেম্বর এবং প্রতীক বরাদ্দ ১০ ডিসেম্বর।