অবান্তর, অযৌক্তিক ও অসাংবিধানিক দাবি দেশের মানুষ মানবে না : মোহাম্মদ নাসিম

578

চুয়াডাঙ্গা, ২৮ অক্টোবর, ২০১৮ (বাসস) : আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, নির্বাচনের আগে দেশের মানুষ কোন অবান্তর, অযৌক্তিক ও অসাংবিধানিক দাবি মানবে না।
তিনি বলেন, জাতীয় নির্বাচন যখন আসে তখন অশুভ একটি মহল ষড়যন্ত্রে মেতে ওঠে। গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সময়ের মত ওই অশুভ শক্তি আবারো নির্বাচনের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে মেতে উঠেছে।
কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম আজ বিকেলে জেলা শহরের ঐতিহাসিক টাউন ফুটবল মাঠে জেলা ১৪ দলের উদ্যোগে আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।
জাতীয় সংসদের হুইপ ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদ (একাংশ)’র সভাপতি শরীফ নুরুল আম্বিয়া, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়–য়া, ওয়ার্কার্স পার্টির পলিটব্যুরোর সদস্য আনিসুর রহমান মল্লিক, গণআজাদী লীগের সভাপতি এসকে সিকদার, গণতন্ত্রী পার্টির সাধারণ সম্পাদক ডা. শাহদাত হোসেন, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল বাসদের আহ্বায়ক রেজাউর রশিদ খাঁন, ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি ন্যাপের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্য নির্বাহী কমিটির সদস্য এসএম কামাল হোসেন।
সংলাপের দাবি নাকচ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী নাসিম বলেন, ‘কেন্দ্রীয় ১৪ দল অর্থহীন সংলাপের পক্ষে নেই। সংলাপের অর্থ হলো নির্বাচন পিছিয়ে দেওয়া এবং অসাংবিধানিক সরকারকে ক্ষমতায় আনা।’
গণফোরামের সভাপতি ও ঐক্যফ্রন্টের নেতা ড. কামাল হোসেনকে নীতিহীন মানুষ বলে অভিহিত করে তিনি বলেন ড. কামাল হোসেনকে বাংলার জনগণ কখনই ক্ষমা করবে না।
তিনি বলেন, ‘দেশের জনগণের রায়ের মাধ্যমেই কেবল সরকার পরিবর্তন হতে পারে। কোনো দল বা মহল সরকার পরিবর্তন করতে পারবে না।’
নাসিম বলেন, ‘বর্তমান সরকার দেশকে যেভাবে উন্নতির পথে এগিয়ে নিয়ে গেছে, তাতে দেশের মানুষ আবারও আওয়ামী লীগকেই ভোট দিয়ে বিজয়ী করবে। সরকার বদলের বিএনপির স্বপ্ন দুঃস্বপ্নে পরিণত হবে।’
তিনি বলেন, ১৪ দলের কর্মীদের, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী কর্মীদের ঘরে বসে থাকার সময় এখন আর নাই। ঘর থেকে বেরিয়ে আসতে হবে।
বিএনপি-জামায়াতের উদ্দেশ্যে আওয়ামী লীগের এই নেতা আরো বলেন, এটা ২০১৪ সাল নয়, ১৮ সাল। তোমাদের মরণকাল এ বছরই হবে। বিএনপি-জামায়াত লোক ভাড়া করছে। পরিত্যক্ত, পলায়নকারীদের ভাড়া করছো। যাদের নীতি নাই, ঠিকানা নাই। পলায়ন করতে অভ্যস্ত, ওই নেতাদের ভাড়া করছে।
তিনি বলেন, খেলার মাঠে খেলোয়াড় ভাড়া করা যায়। রাজনীতি মাঠে নেতা ভাড়া করা হয় এটা প্রথম দেখলাম। ভাড়াটিয়া দিয়ে জয় করতে পারবে না। ভাড়াটিয়া দিয়ে কাজ হয় না। একজন বিদেশে বসে আর দুইজন দেশে বসে চক্রান্ত করছে।
জোটের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আপনারা সাবধান থাকবেন। বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনা ও আমরা যখন ডাক দিব তখন কেউ ঘরে বসে থাকবেন না, ঘর থেকে বেরিয়ে আসবেন। ১৪ সালে বিএনপি-জামায়াত জ্বালাও-পোড়াও করেছে এবার হবে না। আমাদের ঐক্য দরকার।
নাসিম বলেন, সাংবিধানিকভাবে ক্ষমতায় যেতে হলে নির্বাচনের বিকল্প নেই। নির্বাচনে জনগণের রায় মেনে নেবো। নির্বাচনের সময় প্রশাসনসহ সব সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী নির্বাচন কমিশনের নিয়ন্ত্রণে চলে যাবে। স্বাধীনভাবে কাজ করবে নির্বাচন কমিশন।