কৃষ্ণচূড়ার রঙে রঙিন রাঙ্গামাটি

274

রাঙ্গামাটি, ৩০ মে, ২০২১ (বাসস) : করোনা পরিস্থিতি ও লকডাউনে রাঙ্গামাটির পাহাড়ের প্রাকৃতিক পরিবেশ যেন নিজের রুপ ফিরে পেয়েছে। পাহাড়ে এখন পশু-পাখির কোলাহলের পাশাপাশি রাঙ্গামাটি শহর সেজেছে কৃষ্ণচূড়ার লাল রঙে। শহরে প্রবেশ করলেই মনে হবে কৃষ্ণচূড়ার লাল রঙে যেন রঙিন রাঙ্গামাটি।
করোনায় শহরের প্রতিটি পর্যটন স্পট বন্ধ থাকায় এবং সেখানে মানুষের চলাচল না থাকাতে প্রাকৃতিক পরিবেশে এসেছে পরিবর্তন। পর্যটক শুন্য থাকায় এ বিভিন্ন ফুলে ফুলে রাঙ্গামাটি রঙিন হওয়ার সাথে সাথে পাখিদের কোলাহল বেড়েছে কয়েকগুন। রাঙ্গামাটির এমন দৃশ্য সত্যিই বিরল, পাহাড় যেন প্রকৃতির রুপ আগের মতেই ফিরে পেলো।
অন্যান্য ফুলের চেয়ে রাঙ্গামাটি শহরের রাস্তার দুপাশসহ বিভিন্ন স্পটে শোভা পাচ্ছে কৃষ্ণচূড়ার রঙিন ফুল। শহরের প্রবেশ মুখ মানিকছড়ি, ক্ষুদ্র-ণৃ-তাত্ত্বিক জনগোষ্টীর সাংস্কৃকি ইনস্টিটিউটের পাশে, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য সংলগ্ন সেনাবাহিনী এলাকা, রাঙ্গামাটির ফিসারী এলাকা ও বাঁধ সংলগ্ন এলাকা, রাঙ্গামাটি শিশু একাডেমি এলাকাসহ শহরের বিভিন্ন এলাকায় শোভা পাচ্ছে থোকায় থোকায় কৃষ্ণচূড়ার ফুল। কৃষ্ণচূড়ার রঙে রঙিন এলাকা দেখতে সেখানে প্রতিদিনই সৌন্দর্য উপভোগ করতে চলে আসছেন স্থানীয় জনসাধারণ।
এ বিষয়ে রাঙ্গামাটির প্রবীণ সাংবাদিক ও রাঙ্গামাটি প্রেস ক্লাবের প্রাক্তণ সভাপতি আলহাজ একেএম মকছুদ আহমদ বলেন, একসময় রাঙ্গামাটি শহর ছিল কৃষ্ণচূড়া ফুলে রঙিন একটি শহর। রাঙ্গামাটির মূল সড়কে অনেক কৃষ্ণচূড়া গাছ ছিল তখন প্রতিবছর শহরে মে-জুন মাসে গাছে ফুল ফুটলে মনে হতো লাল রঙে রঙিন শহর রাঙ্গামাটি। কালক্রমে আজ রাঙ্গামাটিতে কৃষ্ণচূড়া ফুল গাছ অনেকটাই কমে গেছে। তিনি পর্যটন শহরের সৌন্দর্য রক্ষার্থে শহরের বিভিন্ন এলাকায় কৃষ্ণচূড়া চাছ লাগানোর পরামর্শ দেন। পর্যটন শহরের কৃষ্ণচূড়ার সৌন্দর্যে অভিভূত আরো অনেকেই রাঙ্গামাটির প্রবীণ সাংবাদিক একেএম মকছুদ আহমেদের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করে একই পরামর্শ দিয়েছেন।
এ বিষয়ে রাঙ্গামাটি পৌরসভা মেয়র মোঃ আকবর হোসেন চৌধুরী বলেছেন, পর্যটন শহরকে আধুনিক পৌরশহরে পরিণত করতে প্রশাসনসহ অন্যান্য উন্নয়ন সংস্থার সাথে সামঞ্জস্য রেখে আমরা বিভিন্ন উন্নয়ন কাজ চলমান রেখেছি। তিনি বলেন, ইতিমধ্যে শহরকে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন, আবর্জনামুক্ত রাখার পাশাপাশি সুন্দর নগরীতে পরিণত করতে আমরা পৌরসভার পক্ষ থেকে শহরের প্রবেশ মুখে দৃষ্টিনন্দন গেইট নির্মাণ এবং শহরের ফুটপাটগুলো টাইলসকরন করেছি। তাছাড়া রাঙ্গামাটি শহরে একমসয় কৃষ্ণচূড়ার শহরে রঙিন থাকতো।
কিছু গাছ নষ্ট হয়ে গেছে তবে যেসব গাছগুলো রয়েছে তা সংরক্ষণ করার পাশাপাশি রাঙ্গামাটিকে রঙিন করতে পৌরসভার পক্ষ থেকে শহরের পর্যটন স্পটসহ বিভিন্ন এলাকায় আবারো কৃষ্ণচূড়া গাছ রোপণের উদ্যোগ নেয়া হবে। সবার আলাপ করে এ বিষয়ে উদ্যোগ নেয়া হবে বলে জানান রাঙ্গামাটি পৌরসভা মেয়র।
সম্ভাবনাময় পর্যটন শহর রাঙ্গামাটিকে আধুনিকায়নের পাশাপাশি শহরের দুপাশে কৃষ্ণচূড়াসহ অন্যান্য গাছ লাগানোর মাধ্যমে পরিবেশ সুরক্ষার পাশাপাশি আবারো রঙিন রঙে সাজঁবে রাঙ্গামাটি এ প্রত্যাশা সকলের।