করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন দেশের সোয়া ৪০ লক্ষাধিক মানুষ

152

ঢাকা, ২৩ মে, ২০২১ (বাসস) : দেশে এ পর্যন্ত প্রায় সোয়া ৪০ লক্ষাধিক মানুষ করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ করেছেন। টিকার দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণকারীর সংখ্যা ৪০ লাখ ১৫ হাজার ৫২২ জন। এদের মধ্যে পুরুষ ২৫ লাখ ৭১ হাজার ৫২১ জন এবং নারী ১৪ লাখ ৪৪ হাজার ১ জন।
এদিকে টিকার প্রথম ডোজ গ্রহণ করেছেন ৫৮ লাখ ১৯ হাজার ৯৭১ জন। এদের মধ্যে ৩৬ লাখ ৯ হাজার ২৯ জন পুরুষ এবং নারী ২২ লাখ ১০ হাজার ৯৪২ জন।
এ ছাড়া এপর্যন্ত ৭২ লাখ ৪৮ হাজার ৮২৯ জন মানুষ টিকার জন্য নিবন্ধন করেছেন বলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক অধ্যাপক ডা. মিজানুর রহমান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, গত ২৪ ঘন্টায় সারাদেশে ৪৩ হাজার ৩০৪ জন টিকার দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ করেছেন। এদের মধ্যে পুরুষ ২৬ হাজার ৫৬৬ জন এবং নারী ১৬ হাজার ৭৩৮ জন। প্রথম ডোজ নিয়েছেন ৫৯ জন। এদের মধ্যে পুরুষ ৫০ ও নারী ৯ জন।
এ পর্যন্ত ঢাকা বিভাগে টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ১৩ লাখ ৮২ হাজার ১২১ জন। এর মধ্যে ঢাকা মহানগরীতে ৭ লাখ ৫০ হাজার ৪০৯ জন। ঢাকা বিভাগে প্রথম ডোজ নিয়েছেন ১৮ লাখ ৮ হাজার ৩৪ জন ও ঢাকা মহানগরীতে নিয়েছেন ৯ লাখ ২০ হাজার ৬৩ জন।
ময়মনসিংহ বিভাগে দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ১ লাখ ৮০ হাজার ৪৬১ জন, প্রথম ডোজ গ্রহণ করেছেন ২ লাখ ৮৯ হাজার ২৩৩ জন। চট্টগ্রাম বিভাগে দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ৮ লাখ ৮ হাজার ৯৭২ জন, প্রথম ডোজ গ্রহণ করেছেন ১১ লাখ ৭৮ হাজার ২০৪ জন। রাজশাহী বিভাগে দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ৪ লাখ ১ হাজার ৫৮৩ জন, প্রথম ডোজ নিয়েছেন ৬ লাখ ৬৩ হাজার ৯৬৭ জন। রংপুর বিভাগে দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ৩ লাখ ৬৮ হাজার ২৪৬ জন, প্রথম ডোজ ৫ লাখ ৯৬ হাজার ৯৪৩ জন। খুলনা বিভাগে দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ৪ লাখ ৮৬ হাজার ২৫৪ জন, প্রথম ডোজ নিয়েছেন ৭ লাখ ৩১ হাজার ৮৯ জন। বরিশাল বিভাগে দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ১ লাখ ৭৪ হাজার ৮২৩ জন, প্রথম ডোজ নিয়েছেন ২ লাখ ৫১ হাজার ৩৪৫ জন এবং সিলেট বিভাগে দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ২ লাখ ১৩ হাজার ৬২ জন, প্রথম ডোজ নিয়েছেন ৩ লাখ ১ হাজার ১৫৬ জন।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত ২৭ জানুয়ারি করোনার টিকা প্রদান কর্মসূচির উদ্বোধন করেন। ওই দিন ২১ জনকে টিকা দেয়া হয়। পরদিন রাজধানীর ৫টি হাসপাতালে ৫৪৬ জনকে পর্যবেক্ষণমূলক টিকা দেয়া হয়েছিল। এরপর গত ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে দেশব্যাপী গণটিকাদান কর্মসূচি শুরু হয়। প্রথম টিকা নেয়ার ৬০ দিন পর ৮ এপ্রিল থেকে দ্বিতীয় ডোজ দেয়া শুরু হয়েছে।
দেশে টিকা গ্রহণকারী ব্যক্তিদের মধ্যে এখনো তেমন কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার খবর পাওয়া যায়নি।