বাসস দেশ-৪৫ : চট্টগ্রামের আদালতে হেফাজত তা-বের দায় স্বীকার নোমান ফয়েজীর

37

বাসস দেশ-৪৫
ফয়েজীর-আদালতে-জবানবন্দি
চট্টগ্রামের আদালতে হেফাজত তা-বের দায় স্বীকার নোমান ফয়েজীর
চট্টগ্রাম, ১১ মে ২০২১ (বাসস) : গত ২৬ ও ২৭ মার্চ চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে হেফাজত কর্মীদের তান্ডবের ঘটনার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন হেফাজতে ইসলামের বিলুপ্ত কেন্দ্রীয় কমিটির প্রচার সম্পাদক জাকারিয়া নোমান ফয়েজী।
মঙ্গলবার দুপুরে চট্টগ্রামের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট খন্দকার কৌশিক আহমেদের আদালতে এ জবানবন্দি দেন তিনি। এরপর আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।
জানা যায়, গত ৫ মে বিকেলে কক্সবাজারের চকরিয়া থেকে আত্মগোপন অবস্থায় নোমান ফয়েজীকে গ্রেপ্তার করে চট্টগ্রাম জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। ওইদিন সন্ধ্যায় তাকে চট্টগ্রাম নিয়ে আসা হয়। এরপর তাকে ৬ মে আদালতের মাধ্যমে ৫ দিনের রিমান্ডে পায় পুলিশ। রিমান্ড শেষে পুলিশ আদালতে সোপর্দ করলে হাটহাজারীতে গত ২৬ ও ২৭ মার্চে সহিংসতার ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলায় নিজের দায় স্বীকার করে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন এ হেফাজত নেতা। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চট্টগ্রাম জেলা পুলিশের কোর্ট পরিদর্শক হুমায়ুন কবির।
ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরবিরোধী কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে গত ২৬ মার্চ জুমার নামাজের পর ঢাকার বায়তুল মোকাররম মসজিদ এলাকায় বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে পুলিশ ও সরকারি দলের নেতা-কর্মীদের সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনার জের ধরে চট্টগ্রামের হাটহাজারী ও পটিয়ায় সহিংসতার ঘটনা ঘটে। ৪ হাজার ৩০০ জনকে আসামি করে পটিয়া ও হাটহাজারী থানায় হামলা, ভূমি কার্যালয়ে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগে জড়িত থাকার অভিযোগে করা সন্ত্রাসবিরোধী আইনে পৃথক সাতটি মামলা হয়। পরে ২২ এপ্রিল হেফাজতের নেতা-কর্মীদের আসামি করে পৃথক তিনটি মামলা করে হাটহাজারী থানার পুলিশ। এর মধ্যে দুই মামলায় বিলুপ্ত কমিটির আমির জুনায়েদ বাবুনগরীকে আসামি করা হয়। তিন মামলায় আসামি করা হয় তিন হাজার জনকে। এর মধ্যে নোমান ফয়েজীসহ ১৪৮ জনের নাম উল্লেখ করা হয়। এই মামলায় তিনি ৫ দিনের রিমান্ডে ছিলেন।
এছাড়া গত ৬ মে দিবাগত রাত দুইটার দিকে চট্টগ্রামের হাটহাজারী থানায় এক নারী বাদী হয়ে নোমান ফয়েজীর বিরুদ্ধে ধর্ষণের একটি মামলা দায়ের করেন। তার বিরুদ্ধে একাধিকবার ধর্ষণের অভিযোগসহ বিয়ের প্রলোভন ও প্রতারণার অভিযোগ আনা হয়। মামলা দায়েরের পর চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস (ওসিসি) সেন্টারে ভিকটিমের ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়। যদিও ওই মামলায় তাকে এখনও জিজ্ঞাসাবাদ করেনি পুলিশ।
বাসস/জিই/কেএস/১৯৪৫/কেকে