ভ্যাকসিনের অসমতা ‘অগ্রহণযোগ্য’: ডাব্লুএইচও

190

জেনেভা, ৮ মে, ২০২১ (বাসস ডেস্ক) : বিশ্বজুড়ে কোভিড -১৯ ভ্যাকসিনের বর্তমান ভারসাম্যহীন ব্র্যান্ডিং ‘নৈতিকভাবে অগ্রহণযোগ্য’ উল্লেখ করে শুক্রবার এর ন্যায্য অ্যাক্সেসকে অগ্রাধিকার দিতে জি ৭ কে অনুরোধ জানিয়েছেন বিশ^স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান।
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডাব্লুএইচও )-এর মহাসচিব টেড্রোস অ্যাধনম গেব্রিয়াসুস বলেছেন, ”ধনী ও দরিদ্র দেশগুলির মধ্যে ভ্যাকসিনের অসম বন্টন করোনাভাইরাস মহামারিকে নির্মূল করতে সাহায্য করবে না।” এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘এখন জি ৭ এর জন্য আমাদের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এবং তাৎক্ষণিক সমর্থন প্রয়োজন ভ্যাকসিন এবং ভ্যাকসিন ইকুইটি।’ খবর এএফপি’র।
এএফপি’র এক গণনা অনুসারে, বিশ্বের অন্তত: ২১০ টি অঞ্চলে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনের ১.২৫ বিলিয়ন ডোজ টিকা প্রদান করা হয়েছে। যার প্রায় ৪৫ শতাংশ ডোজ পরিচালিত হয়েছে উচ্চ-আয়ের দেশসমূহে যা সমগ্র বিশে^র জনসংখ্যার ১৬ শতাংশ। সর্বনিম্ন আয়ের ২৯ টি দেশের মাত্র ০.৩ শতাংশের প্রশাসনিক ব্যবস্থা করা হয়েছে, যা বিশ্বের জনসংখ্যার নয় শতাংশ।টেড্রস বলেন, ‘এ ধরণের বিভাজন গ্রহণযোগ্য নয়। কেবল নৈতিক কারণে নয়, এটি গ্রহণযোগ্য নয় কারণ আমরা বিভক্ত বিশ্বে ভাইরাসকে পরাস্ত করতে পারব না।’
সাতটি শিল্প শক্তির সমন্বয়ে ১১-১৩ জুন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের আমন্ত্রণে দক্ষিণ-পশ্চিম ইংল্যান্ডের কর্নওয়ালে জি ৭ শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।
ডাব্লুএইচও বলেছে, মহামারীকে জয় করায় প্রয়োজনীয় পরীক্ষা, চিকিৎসা তহবিল সরবরাহ করা এবং দ্রুত ভ্যাকসিন উৎপাদন রোধ করার বাধাগুলি ছুঁড়ে ফেলার ক্ষমতা জি ৭ এর রয়েছে। টেড্রস বলেন, “ভ্যাকসিনসমূহের বন্টন ও যে কোনো স¤া¢ব্য সহায়তায় বিশ্বের প্রতিটি দেশ আগ্রহী।”
ডাব্লুএইচও-এর অ্যাক্সেসে করোনাভাইরাস জ্যাবগুলির অনুসন্ধান, উৎপাদন ও বিতরণ, পরীক্ষা এবং চিকিৎসার লক্ষ্যে কোভিড -১৯ টুলস এক্সিলারেটর প্রোগ্রামটির জন্য চলতি বছর ২২ বিলিয়ন ডলার লক্ষ্যমাত্রার ১৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলার সংক্ষিপ্ত রয়েছে। এদিকে বিশ্বব্যাপী বেশিরভাগ প্রাপ্তবয়স্কর টিকা নিশ্চিত করায় পরবর্তী বছরে আরো ৩৫ থেকে ৪৫ বিলিয়ন ডলার প্রয়োজন পড়বে।
টেড্রোস জি ৭-ভূক্ত ব্রিটেন, কানাডা, ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি, জাপান ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র দেশগুলির কাছে সমস্যার গভীর খতিয়ে দেখে সমাধান খুঁজে বেড় করার আশাবাদ ব্যক্ত করেন।