বাসস দেশ-১৬ : বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বাংলাদেশ দূতাবাসে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত

167

বাসস দেশ-১৬
দূতাবাস-মাতৃভাষা-দিবস
বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বাংলাদেশ দূতাবাসে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত
ঢাকা, ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ (বাসস) : জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বাংলাদেশ দূতাবাসে যথাযথ মর্যাদায় ‘মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’ পালন করা হয়েছে।
আজ ঢাকায় প্রাপ্ত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।
জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনে বঙ্গবন্ধু অডিটোরিয়ামে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানের শুরুতে মহান একুশের ভাষা শহীদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। এরআগে প্রভাত ফেরীর মাধ্যমে অডিটোরিয়ামটিতে স্থাপিত অস্থায়ী শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করা হয়। এবং মহান একুশের ভাষা শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া করা হয়। এছাড়া দিবসটি উপলক্ষে একটি প্রামাণ্য ভিডিও চিত্র প্রদর্শন করা হয়।
এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা। তিনি বলেন, বাংলাদেশ স্থায়ী মিশন জাতিসংঘসহ সকল আন্তর্জাতিক ফেরামে বহুভাষিকতাকে এগিয়ে নিতে সর্বাত্তক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে এবং তা অব্যাহত থাকবে।
নিউইয়র্কস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে এবং স্বাগতিক দেশের বিধি-বিধান প্রতিপালন করে কনস্যুলেটে এই দিবসটি পালন করা হয়।
অনুষ্ঠানের শুরুতে কনসাল জেনারেল সাদিয়া ফয়জুননেসা কনস্যুলেটের সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারিদের নিয়ে ভাষা শহিদদের স্মরণে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন এবং তাদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। দিবসটি উপলক্ষে ঢাকা থেকে পাঠানো রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্র মন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করা হয়। অনুষ্ঠানে মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের উপর নির্মিত একটি প্রামান্যচিত্র এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রী’র ভিডিও বার্তা প্রদর্শন করা হয়। এতে অংশগ্রহণ করেন কনসাল জেনারেলসহ কনস্যুলেটের অন্যান্য সদস্যবৃন্দ।
কনসাল জেনারেল তার বক্তব্যে মহান ভাষা আন্দোলনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অনবদ্য সাংগঠনিক এবং রাজনৈতিক নেতৃত্বের কথা স্মরণ করেন। ১৯৭৪ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘে প্রথম বাংলা ভাষায় বঙ্গবন্ধুর বক্তব্য এবং ৭ মার্চে বাংলা ভাষায় প্রদত্ত ঐতিহাসিক ভাষণের জাতিসংঘ কর্তৃক আন্তর্জাতিক স্বীকৃতির কথা উল্লেখ করে কনসাল জেনারেল বলেন সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৪৮ সাল থেকে শুরু করে শুধুমাত্র ভাষা আন্দোলনেই নেতৃত্ব দেননি, তিনি পরবর্তীতে বাংলা ভাষাকে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে তুলে ধরতে অনস্বীকার্য ভূমিকা পালন করেছেন। মহান একুশের চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে মুজিব বর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপনের এই সন্ধিক্ষণে জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা বাস্তবায়নে সকলকে একযোগে কাজ করার আহ্বান জানান কনসাল জেনারেল।
বাংলাদেশ দূতাবাস, মস্কো যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ২০২১ পালন করেছে। মহান এ দিনটি পালনের জন্য মিশন বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ করে।
দিবসের কর্মসূচি শুরু হয় ভাষা শহীদদের স্মরণে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করার মধ্য দিয়ে। দিনের প্রথম প্রহরে মিশনের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারির উপস্থিতিতে রাষ্ট্রদূত কামরুল আহসান আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করেন। এরপর শহীদদের আত্মার শান্তি কামনা করে মোনাজাত করা হয়।
বাংলাদেশ দূতাবাস, আদ্দিস আবাবা যথাযথ ভাবগাম্ভীর্য ও বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ‘শহিদ দিবস’ এবং ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’ পালন করে। করোনাভাইরাস জনিত মহামারির কারণে স্বাগতিক দেশের নির্দেশনা অনুযায়ি সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে দূতাবাস প্রাঙ্গণে এ আয়োজন করা হয়। দিনের প্রথম ভাগে ইথিওপিয়ায় বাংলাদেশের ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রদূতের জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সূচনা হয়। এতে প্রবাসি বাংলাদেশিরা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।
নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে তুরস্কের আংকারাস্থ দূতাবাস মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদ্যাপন করেছে। ২১ ফেব্রুয়ারির প্রথম প্রহরে তুরস্কে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মস্য়ূদ মান্নানের নেতৃত্বে দূতাবাসের কর্মকর্তা/কর্মচারি ও প্রবাসি বাংলাদেশিরা জাতীয় পতাকা উত্তোলন এবং দূতাবাস প্রাঙ্গণে নবনির্মিত শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। করোনা সংক্রামণ প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব মেনে অনুষ্ঠানটির আয়োজন করা হয়।
মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস-২০২১ অটোয়াস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশনে যথাযোগ্য মর্যাদায় উদযাপিত হয়। উক্ত দিবসের কার্যক্রমের অংশ হিসেবে মান্যবর হাইকমিশনার মহোদয়ের উপস্থিতিতে বাংলাদেশ হাউজে জাতীয় পতাকা অর্ধনিমিত করা হয় এবং একই সাথে বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত বাজানো হয়। পরিশেষে শহিদদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।
বাংলাদেশ দূতাবাস, স্টকহোমে মহান শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস যথাযোগ্য মর্যাদায় সুইডেনে পালিত হয়েছে।২১ ফেব্রুয়ারি সকালে দেশটির রাজধানী স্টকহোমে বাংলাদেশ দূতাবাস প্রাঙ্গণে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও অর্ধনমিতকরণের মধ্য দিয়ে দিবসের কার্যক্রম শুরু হয়। পরে বিকেলে অনলাইনে জুম প্লাটফর্মে একুশে ফেব্রুয়ারির তাৎপর্য নিয়ে এক মুক্ত আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এ অনুষ্ঠানে সুইডেন, নরওয়ে এবং ফিনল্যান্ডে অবস্থানরত বাংলাদেমি কমিউনিটির সদস্যবৃন্দ অনলাইনে এবং দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারিগণ দূতাবাস প্রাঙ্গণ থেকে যোগদান করেন ।
বাসস/সবি/এমএসএইচ/১৬৫৫/এএএ