ঢাকা-রাজশাহী উভয়েই জয় দিয়ে শুরু করতে চায়

459

ঢাকা, ২৩ নভেম্বর ২০২০ (বাসস) : আগামীকাল থেকে শুরু হওয়া বঙ্গবন্ধু টি-টুয়েন্টি কাপে মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহীর বিপক্ষে জয় দিয়ে যাত্রা শুরু করতে চায় মুশফিকুর রহিমের বেক্সিমকো ঢাকা। মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ম্যাচটি শুরু হেেব দুপুর ১টা ৩০ মিনিটে। বাংলাদেশ টেলিভিশন এবং টি-স্পোর্টস সরাসরি ম্যাচটি সম্প্রচার করবে।
ভালো শুরুর দিকে চোখ মুশফিকুর রহিমের। অপরদিকে, আরেক অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্তও ভালো ফলাফলের জন্য কোন ছাড় দিতে রাজি নন।
অনেকের ধারনা রাজশাহীর চেয়ে কিছুটা পিছিয়ে মুশফিকের ঢাকা। কারণটি বেশ যুক্তিসঙ্গত হতে পারে। তাদের নাইম শেখ ও সাব্বির রহমান ছাড়া অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান নেই। যারা বড় মঞ্চে ম্যাচ জিততে সক্ষম।
নাইমের সাথে ইনিংস শুরু করবেন তরুণ তানজিদ হাসান তামিম। এরপর ব্যাটিংএ আসবেন দুই তরুন ইয়াসির আলী চৌধুরী রাব্বি, রবিউল ইসলাম রবি। মিডল-অর্ডারে দেখা যাবে আকবর আলী ও পিনাক ঘোষকে। লোয়ার-অর্ডারে সাব্বির রহমানের সঙ্গী হবেন শাহাদাত হোসেন দিপু।
ঢাকার বোলিং বিভাগে রুবেল হোসেন ও নাইম হাসান ছাড়া বড় কোন তারকা নেই। পেস বিভাগে রুবেলের সঙ্গী থাকবেন আবু হায়দার রনি, মুক্তার আলি ও মেহেদি হাসান রানা। স্পিনে নাইম হাসানের সাথে থাকবেন নাসুম আহমেদ।
তবে দল নিয়ে আশাবাদী মুশফিক। কারণ তার দলে আছেন, অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপজয়ী তিন খেলোয়াড়- আকবর আলী, তানজিদ তামিম ও শাহাদাত হোসেন দিপু।
আজ মুশফিক বলেন, ‘আশা করছি, বেক্সিমকো ঢাকা ভাল কিছু দিয়ে টুর্নামেন্টে শুরু করতে পারবে এবং একইভাবে শেষও করতে পারবে। আমাদের প্রথম লক্ষ্য শীর্ষ চারে জায়গা করে নেয়া এবং অবশ্যই আমরা শিরোপা জিততে খেলবো।’
তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের দল অনভিজ্ঞ হতে পারে তবে তারা যথেষ্ট পরিপক্ক। আমি গত ১৫-১৬ বছর ধরে খেলেছি এবং কোন বিশ্বকাপ জিততে পারিনি। আমাদের দলে তিন বা চার জন খেলোয়াড় আছে যারা বিশ্বকাপ(যুব) জিতেছে। বিশ্বকাপ জয়ের চেয়ে বড় চাপ আর কিছুতে হতে পারে না। তারা যদি আমাদের শীর্ষস্থানীয় খেলোয়াড়দের সমর্থন এবং নিজেদের সেরাটা দিতে পারে তবে, আমাদের জন্য এটি একটি ভাল টুর্নামেন্ট হবে।’
মুশফিকের ঢাকার মত, রাজশাহীতেও তরুন ক্রিকেটারের ভরপুর। মোহাম্মদ আশরাফুল, ফরহাদ রেজা, রনি তালুকদার, ফজলে রাব্বি ও আরাফাত সানি বাদে সকলেই তরুন। তবে টি-টুয়েন্টি ক্রিকেটে এক ওভারই ম্যাচে গতিপথ পাল্টে দিতে পারে। রাজশাহীর অধিনায়ক উড়ন্ত সূচনার ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী।
বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপে শান্ত একাদশের অধিনায়ক থাকা শান্ত বলেন, ‘আমাদের দলে অনেক তরুন খেলোয়াড় রয়েছে। দলের সমন্বয় ভালো। আমার মনে হয় না, খুব বেশি সমস্যা হবে।’
সর্বশেষ বিপিএলে শান্তর পারফরমেন্স ছিলো চোখে পড়ার মত এবং ঐ পারফরমেন্সে পুনরাবৃত্তি ঘটাতে চান তিনি।
শান্ত বলেন, ‘অবশ্যই টি-টুয়েন্টি ক্রিকেটে আমার ভালো পারফরমেন্স রয়েছে, বিশেষভাবে শেষ দুই-তিনটি ইনিংসে। আমি যখন এই ইনিংসগুলি নিয়ে চিন্তা করি, তখন আমি উৎসাহবোধ করি।’
অন্য দিকে টুর্নামেন্ট শুরুর আগে বড়সড় চিন্তার ভাঁজ রাজশাহীর কপালে। দলের প্রধান খেলোয়াড় মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন গোড়ালির ইনজুরিতে পড়ে এক সপ্তাহের জন্য মাঠের বাইরে চলে গেছেন। তবে হাল ছাড়তে নারাজ অধিনায়ক ।
তিনি বলেন, ‘সাইফউদ্দিন আমাদের সেরা খেলোয়াড়, এতে কোন সন্দেহ নেই। কিন্তু দুভার্গ্যক্রমে প্রথম ছয়-সাত দিন তাকে পাবো না আমরা। কিন্তু এটি নিয়ে আমাদের ভাবার সময় নেই। যেহেতু আগামীকাল আমাদের ম্যাচ রয়েছে, আমরা আত্মবিশ্বাসী, কারন আমাদের ম্যাচ জেতানোর মত খেলোয়াড় রয়েছে।’
মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহী : নাজমুল হোসেন শান্ত (অধিনায়ক), মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, মাহাদি হাসান, নুরুল হাসান সোহান, ফরহাদ রেজা, মোহাম্মদ আশরাফুল, আরাফাত সানি, এবাদত হোসেন, ফজলে রাব্বি, রনি তালুকদার, আনিসুল ইমন, রেজাউর রহমান, জাকের আলী অনিক, রকিবুল হাসান (সিনিয়র), মুকিদুল ইসলাম মুগ্ধ ও সুনাজমুল ইসলাম।
বেক্সিমকো ঢাকা : মুশফিকুর রহিম (অধিনায়ক), রুবেল হোসেন, তানজিদ হাসান তামিম, নাসুম আহমেদ, নাইম শেখ, নাইম হাসান, শাহাদাত হোসেন দিপু, আকবর আলী, ইয়াছির আলী রাব্বি, সাব্বির রহমান, মেহেদী হাসান রানা, মুক্তার আলী, শফিকুল ইসলাম, আবু হায়দার রনি, পিনাক ঘোষ ও রবিউল ইসলাম রবি।