পিরোজপুরে ৫২৬ টি মন্দিরে চলছে দুর্গোৎসবের প্রস্তুতি

205

পিরোজপুর, ৭ অক্টোবর, ২০২০ (বাসস) : জেলায় ৫২৬টি মন্দিরে চলছে দুর্গোৎসবের শেষ পর্যায়ের প্রস্তুতি।
সনাতন ধর্মালম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজাকে ঘিরে পিরোজপুর জেলার সর্বত্র কিছুটা উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে। করোনার কারণে প্রতি বছরের মত ব্যাপক উৎসাহ উদ্দিপনা সৃষ্টি না হলেও জেলার বিভিন্ন এলাকার দুর্গামন্দির গুলোতে প্রতিমা তৈরির কাজ চলছে দ্রুত গতিতে। পিরোজপুর পৌর এলাকার কালীবাড়ি, আখড়াবাড়ী, রাজারহাট, পালপাড়া, রায়েরকাঠী এবং কৃষ্ণনগরসহ বিভিন্ন মন্দির ঘুরে এ চিত্র দেখা গেছে। মন্দিরে মন্দিরে এখন চলছে প্রতিমা রং এর কাজ। এ বছর দেবী দুর্গা দোলায় আগমন করবেন এবং গজে গমন করবেন।
পিরোজপুর জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা মোজাহারুল হক জানান এবার জেলায় ৫২৬টি পূজা মন্ডবে দুর্গা পূজার আয়োজন চলছে। সরকার এসব পূজা মন্ডপের সভাপতি-সম্পাদকের মাঝে বিতরণের জন্য ২৬৩ মে: টন চাল বরাদ্দ দিয়েছে। প্রতিটি মন্দিরে সমহারে এ চাল বিতরণ করা হবে। জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক গোপাল বসু জানান সবচেয়ে বেশি পূজা হচ্ছে নাজিরপুর উপজেলায়। নাজিরপুরে এবার ১শত ১৮টি, পিরোজপুর সদর উপজেলায় ৬৪টি, ভান্ডারিয়া উপজেলায় ৭১টি, স্বরূপকাঠী উপজেলায় ১১৫টি, মঠবাড়িয়া উপজেলায় ৯২টি, কাউখালী উপজেলায় ৪০টি, এবং ইন্দুরকানী উপজেলায় ২৬টি মন্ডপে প্রতিমা তৈরির কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে রয়েছে। জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি বিমল চন্দ্র মন্ডল জানান ,মহামারী করোনার কারণে এবার পূজা উদযাপন পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আলোকস্বজ্জা, প্রতিমা বিসর্জনের শোভাযাত্রাসহ অনেক কর্মসূচি বাতিল করা হয়েছে। পূজার আয়োজক ও ভক্তবৃন্দকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে কর্মকান্ড পরিচালনার জন্য তিনি অনুরোধ জানান। পিরোজপুরের পুলিশ সুপার হায়াতুল ইসলাম খান জানান, সকল মন্দিরে সুষ্ঠু এবং শান্তিপূর্ণ ভাবে দুর্গা পূজা সম্পন্ন করার লক্ষ্যে যথাযথ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হবে। উল্লেখ্য ২২ অক্টোবর থেকে শারদীয় দুর্গোৎসব শুরু হবে এবং ২৬ অক্টোবর সোমবার বিজয়া দশমীর মধ্য দিয়ে শেষ হবে সনাতন ধর্মালম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব।