কুমিল্লায় জমে উঠেছে আমন ধানের চারার হাট

693

কুমিল্লা (দক্ষিণ), ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০ (বাসস) : জেলায় জমে উঠেছে আমন ধানের চারা বেচা-কেনার হাট-বাজার। জেলার মাধাইয়া হাট-বাজারটি বিশাল এলাকা জুড়ে ভোর থেকেই বসছে আমন চারার হাট। তবে বর্তমানে আমন ধানের চারার দাম ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে থাকায় ক্রেতারাও খুশি।
খোঁজ নিয়ে দেখা যায়, কুমিল্লার বেশীর ভাগ এলাকায় এখন চলছে আমন ধান আবাদের ভরা মৌসুম। তবে প্রকৃতির উপর নির্ভর করে বর্ষা মৌসুমে বৃষ্টির পানিতে এ অঞ্চলের কৃষকরা রোপা আমন ধান চাষ করে থাকেন। কৃষক এখন মাঠে ক্ষেত পরিচর্যায় ব্যস্ত। বর্তমানে আবহাওয়া ভালো থাকায় চাষে আগ্রহী হয়েছেন বলে জানিয়েছেন কৃষকরা। আমনের চারা কিনতে কৃষক ছুটছেন কুমিল্লার চারার হাটগুলোতে।
কৃষি বিভাগ জানিয়েছে, স্থানীয় জাতের আমনের চারা ভালো মানের এবং বেশ লম্বা। এটি লবণসহিষ্ণু জাত। কুমিল্লার দোল্লাই নবাবপুর, মাধাইয়া, ইলিয়টগঞ্জ চারা বাজারগুলো ঘুরে দেখা যায় চারা কিনতে বহু দূরদূরান্তে কৃষকরা হাটে এসেছেন। মাধাইয়া হাটে আসা কৃষক শাজাহান হাওলাদার বাসসকে বলেন, আমি উপজেলা কৃষি অফিসারগণের পরামর্শে বিএডিসি অফিস থেকে ৪৫ কেজি ধান সংগ্রহ করে ১৫ শতক জমিতে ফলাই। এতে যে ধানের চারা হয়েছে তা দিয়ে আমার ১২০ শতক জমিতে চারা রোপণ করে বাকি চারা আমি ৫ হাজার টাকা বিক্রয় করেছি এবং আমি আরো ৫ হাজার টাকার চারা বিক্রি করতে পারবো। দোল্লাই নবাবপুর বাজারে আসা কৃষক ওমর আলাী বাসসকে বলেন, আমি বাজারে এসেছি আমন ধানের চারা কিনতে। এ বাজারে জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে কৃষকরা ধানের চারা ক্রয় বিক্রয় করতে আসে। আমিও প্রতি বছর এ বাজার থেকে চাহিদা ও পছন্দ মত ধানের চারা ক্রয় করে আমার জমি চাষ করি আসছি।
এ প্রসঙ্গে দোল্লাই নবাবপুর হাট-বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক কামরুল ইসলাম বাসসকে বলেন, আমাদের বাজারে অনেক বড় চারার হাট বসে। তবে অন্য বারের চেয়ে এবার হাট আরো জমজমাট হয়েছে। দুর-দুরান্ত থেকে যে সব কৃষকরা আসে তাদের কেউ যেন কোনো প্রকার সমস্যায় না পড়ে তার জন্য আমরা কঠোর নজরদারি রেখেছি।
এ ব্যাপারে কুমিল্লা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক সুরজিত দত্ত বাসসকে বলেন, বীজতলা তৈরী থেকে শুরু করে ধানের বীজ সংগ্রহ করে দেওয়া এবং বিভিন্ন ভাবে পরামর্শ দিয়ে কৃষকদের সহযোগিতা করেছি। করোনা পরবর্তী খাদ্য সংকট মোকাবেলায় আমাদের কৃষি কর্মকর্তাগণ সার্বক্ষণিক কৃষকদের পাশে থেকে বিভিন্ন ভাবে সহযোগিতা করে যাচ্ছি। আমন ধান রোপণের জন্য বর্তমান সরকারের নিদের্শনা অনুযায়ী আমরা জেলার বিভিন্ন এলাকার কৃষকদের মাঝে বিনা মূল্যে ধানের বীজ, সার প্রনোদনা দিয়ে আসছি।