বাসস দেশ-৫২ : বঙ্গমাতার ৯০তম জন্মবার্ষিকী পালন করেছে কলকাতা উপ-হাইকমিশন

289

বাসস দেশ-৫২
বঙ্গমাতার ৯০তম জন্মবার্ষিকী পালন করেছে কলকাতা উপ-হাইকমিশন
কলকাতা, ৯ আগস্ট, ২০২০ (বাসস) : যথাযথ ভাবগাম্ভীর্য ও প্রাণবন্ত পরিবেশে আজ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সহধর্মিনী শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৯০তম জন্মবার্ষিকী পালন করেছে কলকাতাস্থ বাংলাদেশ উপ-হাইকমিশন। এ বছর বঙ্গমাতার জন্মবার্ষিকীতে উপহাইকমিশনের পক্ষ থেকে প্রতিপাদ্য নিধরারণ করা হয়েছে ‘বঙ্গমাতা ত্যাগ ও সুন্দরের সাহসী প্রতিক’।
এই প্রতিপাদ্যের আলোকে রোবার কলকাতা উপ-হাইকমিশনের ‘বাংলাদেশ গ্যালারী’-তে বঙ্গমাতার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন, তাঁর কর্মময় জীবনের উপর ভিত্তি করে প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শনী ছাড়াও জীবন দর্শণের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা হয়।
আনুষ্ঠানের শুরুতে রাষ্ট্রপতির বাণী পড়ে শোনান উপ-হাইকমিশনের কন্স্যুলার মো: বশির উদ্দীন ও প্রধানমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন প্রথম সচিব (রাজনৈতিক) সানজিদা জেসমিন।
উপ-হাইকমিশনার তৌফিক হাসানের সভাপিত্বে আলোচনা সভার শুরুতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব, শেখ কামাল ও বঙ্গবন্ধু পরিবারের প্রয়াত সকল সদস্যের আত্মার মাগফিরাত কামনা করা হয়। উপ-হাইকমিশনার বঙ্গমাতার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা›জলী নিবেদন করেন। পরে বঙ্গবন্ধুর অবলম্বন ও ছায়াসঙ্গী বঙ্গমাতার কর্মময় জীবনের উপর প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শিত হয়।
আলোচনার শুরুতে তৌফিক হাসান সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিবের জীবন দর্শণ সম্বন্ধে স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে তিনি বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে বঙ্গমাতার অবদান অপরিসীম, দেশ ও জাতির জন্য তাঁর আত্মত্যাগ প্রতিটি বাঙালী চিরদিন স্মরণ করবে।
তিনি বলেন, বাঙালি জাতির সুদীর্ঘ স্বাধিকার আন্দোলনের প্রতিটি পদক্ষেপে তিনি বঙ্গবন্ধুকে স্বক্রিয় সহযোগিতা করেছেন। তৌফিক হাসান বলেন, প্রাতিষ্ঠানিক কোন শিক্ষা ছাড়াই তিনি ছিলেন সুক্ষ্ম প্রতিভা স¤পন্ন ঙাণী বুদ্ধিদীপ্ত, দ্বায়িত্ববান ও ধৈর্যশীল রাজনৈতিকভাবে দৃঢ় চেতা এক মহিয়সী নারী।
আন্যাদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মিনিস্টার (রাজনৈতিক) বি এম জামাল হোসেন, প্রথম সচিব (বানিজ্যিক) মো: শামসুল আরিফ ও দ্বিতীয় সচিব শেখ সাফিনুল হক।
বাসস/সবি/২২৪৫/এবিএইচ