বাসস দেশ-৫০ : করোনা মোকাবিলা এখন প্রথম চ্যালেঞ্জ : নবনিযুক্ত ডিজি

127

বাসস দেশ-৫০
ডিজি-সংবাদ সম্মেলন
করোনা মোকাবিলা এখন প্রথম চ্যালেঞ্জ : নবনিযুক্ত ডিজি
ঢাকা, ২৭ জুলাই, ২০২০ (বাসস) : করোনা মহামারি মোকাবিলা করা এখন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রথম চ্যালেঞ্জ বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের নবনিযুক্ত মহাপরিচালক ডা. এ. বি. এম খুরশীদ আলম।
তিনি বলেন, ‘আমার প্রথম কাজ হবে করোনা মহামারি সামাল দেওয়া। পরে দুর্নীতি ও অনিয়মের বিরুদ্ধে পর্যায়ক্রমে ব্যবস্থা নেয়া।’
মহাপরিচালক আজ সোমবার বিকেলে অনলাইনে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে অংশ নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন।
দুর্নীতি কমানো নাকি মহামারি দূর করা-কোনটাকে গুরুত্ব দিয়ে কাজ শুরু করবেন এমন প্রশ্নের জবাবে খুরশীদ আলম বলেন, ‘আমার প্রথম কাজ হবে মহামারি সামাল দেওয়া। কারণ আগে তো বাঁচি, তারপর অন্যকিছু। বাঁচলে দুর্নীতি দূর করতে কাজ করা যাবে।’
স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রতি মানুষের আস্থা ফেরানোর বিষয়ে নবনিযুক্ত ডিজি বলেন, এ ক্ষেত্রে আমি সবার সহযোগিতা চাই। আপনারা এক মাস দুই মাস দেখেন আমরা কাজ করি, তারপর মূল্যায়ন করবেন। সবার সহযোগিতা পেলে আমরা অবশ্যই আস্থা ফেরাতে পারব।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নতুন মহাপরিচালক নিজের পরিকল্পনা সম্পর্কে বলেন, এই মুহূর্তে দেশের অনেক জেলা বন্যায় ভেসে গেছে। সমস্ত বানভাসি মানুষদের কী করে স্বাস্থ্য বিষয়ে সাহায্য করা যায় সে বিষয়েও সকালে আলোচনা করেছি। বর্তমান সময়ে মহামারি ও বন্যা মোকাবিলা প্রধান কাজ। এ দু’টো বিষয়কেই প্রাধান্য দিয়ে কাজ করব। পরে পর্যায়ক্রমে অন্যান্য বিষয় নিয়ে কাজ করা হবে।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের দুর্নীতি প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে খুরশীদ আলম বলেন, আমি সবে মাত্র দায়িত্ব নিয়েছি। এখানকার বিষয়ে বলতে পারব না। তবে আমরা চিকিৎসকরা করোনার মধ্যে মানুষের সেবা দেওয়ার শতভাগ চেষ্টা করেছি। করোনার শুরুতে সবার এ ভাইরাস সম্পর্কে সুষ্ঠু ধারণা ছিল না, তাই সবারই ভয় ছিল। কিন্তু এখন অনেকটা কেটে গিয়েছে।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও মন্ত্রণালয়ের মধ্যে সমন্বয়হীনতা রয়েছে এমন প্রশ্নের জবাবে মহাপরিচালক বলেন, আমরা চেষ্টা করব স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সঙ্গে মন্ত্রণালয়ের সুসম্পর্ক কীভাবে বজায় রেখে একসঙ্গে কাজ করা যায়। সেদিকে নজর রেখেই কাজ করব।
আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ বলেন, সকালে সাবেক নৌপরিবহন মন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য শাজাহান খানের মেয়ে ঐশী খান সশরীরে উপস্থিত থেকে করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) টেস্টের রিপোর্ট সম্পর্কে অভিযোগ দায়ের করেছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে। আমরা সঙ্গে সঙ্গেই তিন সদস্যের কমিটি করেছি। অল্পদিনের মধ্যেই রিপোর্ট জমা দেবে। এতে যদি দেখা যায়, এর সঙ্গে ব্যক্তিগতভাবে কেউ জড়িত থাকে তাহলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
এসময় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা ও অতিরিক্ত মহাপরিচালক (উন্নয়ন ও পরিকল্পনা) ডা. সানিয়া তাহমিনা ঝোরা উপস্থিত ছিলেন।
বাসস/বিকেডি/১৯৪২/এএএ