আগামী মাস থেকে ব্যক্তিগত অনুশীলন শুরু করতে চান সাকিব

237

ঢাকা, ২৫ জুলাই ২০২০ (বাসস): আগামী মাস থেকেই ব্যক্তিগত অনুশীলন শুরুর পরিকল্পনা করছেন বাংলাদেশের তারকা অল রাউন্ডার সাকিব আল হাসান। খেলায় নিজেকে শতভাগ উপযুক্ত করে গড়ে তোলের লক্ষ্যেই এই অনুশীলন।
আগামী ২৯ অক্টোবর শেষ হয়ে যাচ্ছে সাকিবের নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ। এরপর ফের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহনের পথ উন্মুক্ত হয়ে যাবে এই বিশ^সেরা অল রাউন্ডারের। বাজিকরদের একটি প্রস্তাবের কথা কর্তৃপক্ষকে যথাসময়ে না জানানোর অভিযোগে এমন দন্ড ভোগ করতে হয়েছে দেশসেরা এই অলরাউন্ডারকে। শাস্তি হিসেবে এক বছর ক্রিকেট থেকে নির্বাসিত থাকতে হয়েছে সাকিবকে।
এক বছরের শাস্তি স্থগিত রাখার অর্থ হচ্ছে এক বছর পর তিনি ক্রিকেট খেলার সুযোগ পাবেন। তবে পরের এই বছরটিতে আইসিসির কড়া নজরদারীতে থাকতে হবে সাকিবকে। অবশ্য নিষেধাজ্ঞা উঠে যেতে আরো তিন মাস বাকী আছে। তবে এরই মধ্যে বাংলাদেশের হয়ে খেলার জন্য নিজেকে সম্পুর্নভাবে প্রস্তুত করে তুলেেত চান তিনি। কারণ অক্টোবর নভেম্বরে তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলতে শ্রীলংকা সফরের সম্ভাবনা রয়েছে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের। আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপের অংশ এই তিন ম্যাচের সিরিজটি আয়োজন করার কথা ছিল আগস্টে। কিন্তু কোভিড-১৯ এর সংক্রমেনর কারণে সেটি স্থগিত করা হয়। তবে এটি পুন:নির্ধারনের সম্ভাবনা রয়েছে।
তবে আইসিসি টি-২০ বিশ^কাপ বাতিল হলেই কেবল এই সুযোগটি পাওয়া যাবে। আর এ সিরিজের দিকেই নজর সাকিব আল হাসানের। ইএসপিএন ক্রিকইনফোকে দেয়া এক ভিডিও সাক্ষাৎকারে দেশসেরা এই অল রাউন্ডার বলেন,‘ আগামী মাস থেকেই আমি অনুশীলন শুরু করতে চাই। কঠোর অনুশীলনের মাধ্যমে নিজেকে ফিট করে তোলার জন্য আমার হাতে রয়েছে তিন মাস সময়। এ সময় আমি অন্য কিছু করতে চাই না। তবে আমার মনে হয় নিজের ফিটনেস পুর্বের অবস্থায় ফিরিয়ে আনতে এই তিনমাস কম সময় নয়। এই মুহুর্তে এটিই আমার পরিকল্পনা।’
এই মুহুর্তে দুই কন্যা সন্তান ও স্ত্রীকে নিয়ে যুক্তরাস্ট্রে অবস্থান করছেন সাকিব। সেখানেই পরিবার পরিজনের সঙ্গে ঈদ উল আজহা উদযাপন করতে চান তিনি। এরপর অনুশীলনে মনোনিবেশ করতে চান সাকিব।
সাকিবের পারিবারিক সুত্র মতে, ইংল্যান্ডে ব্যক্তিগত অনুশীলন শুরু করতে চান সাকিব। নিজের এই অনুশীলন পর্ব দেখভাল করার জন্য সাকিব তার বিকেএসপির শিক্ষক সালউদ্দিন এবং পাকিস্তানের সাবেক অফ-স্পিনার সাকলাইন মুস্তাককে আমন্ত্রন জানিয়েছেন।
একই ভাবে আইপিএল চলাকালে ভারতের হায়দ্রাবাদে সালাউদ্দিনের অধীনে বিশ^কাপের জন্য নিজেকে প্রস্তুত করেছিলেন সাকিব। ব্যক্তিগত ওই অনুশীলন বৃথা যায়নি। বিশ^কাপের আসরে তিনি ৬০৬ রানের পাশাপাশি সংগ্রহ করেছেন ১১টি উইকেট। বিশ^কাপের ইতিহাসে যা সাকিবকে নতুন রেকর্ডের মর্যাদার আসনে বসিয়েছে। এর আগে কোন ক্রিকেটার বিশ^ মঞ্চে এই দক্ষতা প্রদর্শন করতে পারেননি। এর আগে বিশ^কাপে ৫০০ রান ও ১০ উইকেট সংগ্রহের নজীর রয়েছে বিশ^কাপের আসরে।
এদিকে করোনা আক্রান্ত পিতা মাসরুর রেজা ও মা শিরিন রেজার সঙ্গে নিবিড় যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছেন সাকিব আল হাসান। দুই জনের অবস্থাই এখনো স্থিতিশীল রয়েছে বলে সাকিবের পারিবারিক সুত্রে জানা গেছে।