বাসস প্রধানমন্ত্রী-৬ (প্রথম কিস্তি) : রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে মিয়ানমারের ওপর আরো চাপ বাড়ানোর আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

373

বাসস প্রধানমন্ত্রী-৬ (প্রথম কিস্তি)
মিয়ানমার-রোহিঙ্গা-যুক্তরাষ্ট্র
রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে মিয়ানমারের ওপর আরো চাপ বাড়ানোর আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের
ঢাকা, ১৬ মার্চ, ২০২০ (বাসস) : ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলার রোহিঙ্গা নাগরিকদের বাংলাদেশ থেকে ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমারের ওপর অরো চাপ বাড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন।
তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ থেকে মিয়ানমার নাগরিকদের ফিরিয়ে নিতে দেশটির ওপর আরো চাপ সৃষ্টি করা উচিত।’ আজ সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তাঁর সরকারি বাসভবন গণভবনে এক সৌজন্য সাক্ষাৎকালে মার্কিন রাষ্ট্রদূত এই মত প্রকাশ করেন।
সাক্ষাৎ শেষে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।
তিনি বলেন, মার্কিন রাষ্ট্রদূত মিয়ানমার থেকে জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত ১১ লাখের বেশি রোহিঙ্গা নাগরিককে বাংলাদেশে আশ্রয় দেয়ার ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদারতার প্রশংসা করেছেন।
প্রেস সচিব বলেন, প্রধানমন্ত্রী এবং মার্কিন রাষ্ট্রদূত বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবের বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করেন। এ প্রসঙ্গে, শেখ হাসিনা প্রাণঘাতী ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে তার সরকারের সতর্কতামূলক পদক্ষেপ সম্পর্কে মিলারকে অবহিত করেন।
বৈঠকের শুরুতে মার্কিন রাষ্ট্রদূত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ‘মুজিব বর্ষ’ উপলক্ষে তার আন্তরিক অভিনন্দন জানান। তিনি বলেন, মার্কিন দূতাবাস পৃথক কর্মসূচির মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ উদযাপন করবে।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবের পরিপ্রেক্ষিতে সরকার জন্মশতবার্ষিকী কর্মসূচি সংশোধন করেছে। তিনি বলেন, সরকার মুজিব বর্ষ উপলক্ষে বৃক্ষরোপণসহ বিভিন্ন সামাজিক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।
শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমাদের লক্ষ্য মুজিব বর্ষের মধ্যে সবার জন্য বিদ্যুৎ ও আবাসন নিশ্চিত করা… আমরা চাই একটি বাড়িও বিদ্যুৎ ছাড়া থাকবে না এবং মুজিব বর্ষের মধ্যে একটি মানুষও গৃহহীন থাকবে না।’
প্রেস সচিব জানান, মার্কিন রাষ্ট্রদূত প্রধানমন্ত্রীকে একটি অ্যালবাম উপহার দেন, যাতে ১৯৭৪ সালে জাতির পিতার যুক্তরাষ্ট্র সফরের সময় বঙ্গবন্ধুর এবং তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জেরাল্ড ফোর্ডের ফটোগ্রাফ রয়েছে।
শেখ হাসিনা অ্যালবামটি দেয়ার জন্য রাষ্ট্রদূতকে ধন্যবাদ জানান এবং রাষ্ট্রদূতের মাধ্যমে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে শুভেচ্ছা জানান।
প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস উপস্থিত ছিলেন।
চলবে/বাসস/এসএইচ/অনুবাদ-এইচএন/২২৪০/এবিএইচ