বাসস ক্রীড়া-১৪ : তামিম নিজেকে বেশী চাপে রেখেছিল: ম্যাকেঞ্জি

378

বাসস ক্রীড়া-১৪
ক্রিকেট-তামিম -ম্যাকেঞ্জি
তামিম নিজেকে বেশী চাপে রেখেছিল: ম্যাকেঞ্জি
সিলেট, ২ মার্চ ২০২০ (বাসস): বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের ব্যাটিং পরামর্শক নেইল ম্যাকেঞ্জি মনে করেন দলের সিনিয়র ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল নিজের উপর বেশী চাপ নিয়ে ফেলেছিলেন। কারণ সবাই তার কাছ থেকে ধীর স্থির ব্যাটিংয়ের পরিবর্তে মারমুখি ব্যাটিং দেখতে চায়। যে কারণে তাকে নিয়ে সমালোচনায় মেতেছিল।
দিন শেষে তার ধীরস্থির ব্যাটিং কাজে আসেনি। আধুনিক ক্রিকেটের সঙ্গেও এটি মানানসই নয়। টাইগার দলের এই ওপেনারকে নিয়ে বিভিন্ন মহলের সমালোচনাকেও সে গুরুত্বসহকারে নিয়েছে। যে কারণে সে স্বাভাবিক ক্রিকেট খেলতে পারেনি।
জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশ ১৬৯ রানের রেকর্ড ব্যবধানে জয় পেলেও ওই ম্যাচে তামিম ৪৩ বলের মোকাবেলায় সংগ্রহ করেছেন মাত্র ২৪ রান। অথচ ওই পিচকে ব্যাটিং স্বর্গ হিসেবেই বিবেচনা করা হচ্ছে। লিটন দাসের ব্যাটিং দৃঢ়তা না থাকলে তার ওই ধীর ব্যাটিং বাংলাদেশকে ভোগাতে পারতো।
ম্যাকেঞ্জির মতে এই উইকেটে তামিম আরো বেশী কার্যকর ভুমিকা রাখতে পারতেন। কিন্তু কয়েকটি বাউন্ডারী মারতে ব্যর্থ হওয়ার পর তিনি সম্ভবত সেটি করতে পারেননি। তামিম হয়তো সমালোচনা নিয়ে বেশী চিন্তিত ছিলেন। যা তাকে চাপের ফেলেছে এবং এর প্রতিফলন ঘটেছে তার ব্যাটিংয়ে।
টাইগার দলের পারমর্শক আজ বলেন,‘ আপনি যদি মনে করেন সে একটি ভুল করে ফেলেছে, তামিমের অতীত ভুমিকা জানার কারণে মনে করেন সে গতকাল ব্যর্থ হয়েছে, এসব ভেবে সে নিজের উপর বেশী চাপ নিয়ে ফেলেছিল। তবে এটি এতটাই সহজ উইকেট ছিল যেখানে সাফল্য পেতে তার দারুন সুযোগ ছিল। সম্ভবত সে একটি বা দুটি বলে হাত খুলে মারার চেস্টা করেছিল। কিন্তু সে যদি এক বা দুটি বাউন্ডারি মারতে না পারতো তাহলে আপনারা তাকে নিয়ে সমালোচনায় মেতে উঠতেন।’
তবে ম্যাকেঞ্জি মনে করেন না ধীরলয়ের ব্যাটিং দিয়ে তামিম এগুতে পারবেন। তিনি বলেন, ‘আমি জানি সে সবে ফিরে এসেছে। একবার তার অতীত রেকর্ডে তাকান, সে একজন প্রথম শ্রেনীর খেলোয়াড়। দিনের পর দিন ধীরলয়ে খেলা তার জন্য কঠিন শাস্তির মত। তামিম কত রান করেছে আমরা সেটা জানি। আপনারাও জানেন সে কতটা মানসম্পন্ন খেলোয়াড়। কিছুদিনের জন্য সে হয়তো খেলার বাইরে ছিল। তবে এখন তাকে রানের জন্য মরিয়া বলেই মনে হচ্ছে।’
সব সময় বলা হয় তামিমকে শেষ অবদি দলের ভুমিকা রাখতে হবে। যে কারণে তিনি উইকেট বাঁচিয়ে রাখার জন্য ধীরলয়ে খেলার সঙ্গে মানিয়ে নিতে চেস্টা করছেন। তবে ম্যাকেঞ্জি সেটিকে প্রত্যাখ্যান করে বলেছেন, কোন খেলোয়াড়কেই সুনর্দ্দিষ্ট কোন দায়িত্ব দেয়া হয় না।
তিনি বলেন,‘ ম্যাচ পরিকল্পনা কি হবে সেটি আমরা জানি। সেও সেটি জানে। এখানে আমরা কেউ স্কুলের শিক্ষক নই। কাউকে বলতে পারিনা এটি শিখতে হবে। এটি করতে হবে। আমরা শুধু আমাদের অভিমত ব্যক্ত করি। আমাদের ভাবনার কথা জানাই এবং কৌশলগত উপদেশ দিয়ে থাকি। আর মাঠে এসব পরিকল্পনা বাস্তবায়নের দায়িত্ব থাকে খেলোয়াড়দের উপর। আমরা তরুনদের কথা বলছি না। বলছি সিনিয়র খেলোয়াড়দের কথা।’
বাসস/এসএমপি/অনু/এমএইচসি/১৯৪০/স্বব