বেগম খালেদা জিয়ার জামিন আদালতের বিষয় : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

759

মেহেরপুর, ১ মার্চ ২০২০, (বাসস) : স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন বলেছেন, বিএনপি’র চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার জামিন আদালতের বিষয়। এখানে সরকারের কোন করণীয় নেই।
সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, তার জামিনের ব্যাপারে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কিছুই করার নেই। আদালত যদি মনে করেন, তাহলে তাকে জামিন দিবেন, এটা আদালতের এখতিয়ার। এখানে সরকারের করার কিছুই নেই।
মন্ত্রী আরও বলেন, খালেদা জিয়াকে জেলখানায় জেলকোড অনুযায়ী সকল সুবিধা দেওয়া হচ্ছে। তার স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও চিকিৎসা দেশের সর্বোচ্চ হাসপাতাল থেকে দেওয়া হচ্ছে। সেখানে চিকিৎসকেরা বলেছেন, দেশেই তার চিকিৎসা সম্ভব।
খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন সম্পর্কে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আন্দোলনের কোন শক্তিই বিএনপির নেই। তারা জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আজ রোববার বিকেলে ড. শহীদ সামসুজ্জোহা পার্কে মেহেরপুর জেলা পুলিশ আয়োজিত ‘মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গি বিরোধী সমাবেশে’ প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, মাদকের কুফল সম্পর্কে গণসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। মাদককে না বলুন। মাদক শুধু ব্যক্তিকে ধ্বংস করে না, পরিবারকেও ধ্বংস করে দেয়। মাদক সেবনকারি তার পিতা-মাতাকেও হত্যা করে। আর কোন মাদকাসক্ত ঐশি যেন তার পিতা-মাতাকে খুন করতে না পারে, সেলক্ষ্যে মাদকের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছেন বলে তিনি উল্লেখ করেন।
তিনি বলেন, একটা সময় মাদকদ্রব্য অধিদপ্তর ঠুঁটো জগন্নাথ ছিল। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী দপ্তরটিকে ঢেলে সাজিয়েছেন। দক্ষ কর্মকর্তাসহ লোকবল দেয়া হয়েছে। এখন প্রতিষ্ঠানটির কর্মকান্ড প্রসংশিত হচ্ছে।
আসাদুজ্জামান খাঁন বলেন, ‘রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠিকে মায়ের আঁচল দিয়ে অতি যতেœ রেখেছেন আমাদের প্রধানমন্ত্রী। একারণেই প্রধানমন্ত্রী মাদার্স অব হিউম্যানিটি উপাধি পেয়ে সারা বিশ্বে প্রসংশিত হয়েছেন’।
তিনি বলেন, ১১ বছর আগের পুলিশ আর বর্তমান পুলিশের মধ্যে ব্যবধান অনেক। বর্তমান পুলিশ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দায়িত্ব পালন করছেন।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, পুলিশ হোক আর সাধারণ মানুষ হোক সকলেই আইনের কাছে সমান। তাই পুলিশের বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ পেলে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।
মেহেরপুর পুলিশ সুপার এস এম মুরাদ আলির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে জন প্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন, মেহেরপুর-২ গাংনী আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ সাহিদুজ্জামান খোকন, খুলনা বিভাগীয় ডিআইজি খন্দকার মহিদ উদ্দিন, মেহেরপুর জেলা প্রশাসক মো. আতাউল গনি ও মেহেরপুর জেলা আওয়াী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ খালেক অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন।
জন প্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেনে, বিএনপি জামায়াতের সময়ে কৃষক গোয়াল ঘরে গরুর গলার দড়ি পায়ে বেঁধে ঘুমাতো। সরকারের সদিচ্ছায় এখন কৃষক নিশ্চিন্তে বাসঘরে ঘুমাতে পারে। তিনি সন্ত্রাস, দুর্নীতি, মাদকের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর সাথে একমত হয়ে দেশের যুব সমাজকে উদ্বুদ্ধ হবার আহবান জানান।
এর আগে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মুজিবনগর স্মৃতিসৌধে ফুল দিয়ে মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের প্রতি সম্মান জানান।