বাসস দেশ-১৬ : দুবাইয়ের ‘গালফফুড-২০২০’ প্রদর্শনীতে অংশ নিচ্ছে দেশের ২৯ প্রতিষ্ঠান

328

বাসস দেশ-১৬
উপসাগরীয়-খাদ্য-প্রদর্শনী
দুবাইয়ের ‘গালফফুড-২০২০’ প্রদর্শনীতে অংশ নিচ্ছে দেশের ২৯ প্রতিষ্ঠান
ঢাকা, ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ (বাসস) : দুবাই ইন্টারন্যাশনাল ট্রেড সেন্টারে আগামী ১৬ থেকে ২০ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠেয় চার দিনব্যাপী ‘গালফফুড-২০২০’-এ বাংলাদেশের ২৯টি খাদ্য ও পানীয় উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান অংশ নেবে।
প্রতিষ্ঠানগুলো বাংলাদেশ এগ্রো-প্রসেসরস অ্যাসোসিয়েশন (বাপা)-এর সমন্বয়ে এবং রফতানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি)’র সহায়তায় অংশ নিচ্ছে।
প্রতিষ্ঠানগুলো হলো- হিফস এগ্রো ফুড ইন্ডাস্ট্রিজ, শোয়েব এন্টারপ্রাইজ, বোম্বাই সুইটস এন্ড কো লিমিটেড, আকিজ ফুড অ্যান্ড বেভারেজ লিমিটেড, ডেনিশ ফুডস লিমিটেড, আহমেদ ফুড প্রোডাক্টস (প্রাইভেট) লিমিটেড, বনফুল অ্যান্ড কো লিমিটেড, কাজী ফুড ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, এজি এগ্রো ফুডস লিমিটেড, নিউজিল্যান্ড ডেইরি প্রোডাক্টস বাংলাদেশ লিমিটেড, অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, বঙ্গ মিলার্স লিমিটেড, হাবিগঞ্জ এগ্রো লিমিটেড, ময়মনসিংহ এগ্রো লিমিটেড, প্রাণ এগ্রো লিমিটেড, হাশেম এগ্রো প্রসেসিং লিমিটেড এবং ওরিয়ন টি কোম্পানী লিমিটেড।
বাসস-এর সঙ্গে আলাপকালে ইপিবির উপ-পরিচালক আবু মুখলেস আলমগীর হোসেন বলেন, বাংলাদেশের জুস ও ড্রিংকস, স্ন্যাকস, মশলা, মিষ্টি এবং বেকারি আইটেমের মতো পণ্য প্রদর্শন করবেন প্রদর্শকরা।
তিনি বলেন, মধ্য প্রাচ্য, উত্তর আফ্রিকা এবং দক্ষিণ এশিয়া (এমইএএসএ) অঞ্চলে রফতানি বাজার সম্প্রসারণের লক্ষ্যে বাংলাদেশ প্রতি বছর গলফফুড প্রদর্শনীতে অংশ নেয়।
হোসেন বলেন, সংযুক্ত আরব আমিরাতে প্রায় ১ মিলিয়ন বাংলাদেশী প্রবাসী বাসবাস করে এবং কাজ করে, সেখানে বাংলাদেশি খাদ্যপণ্যের প্রচারে প্রদর্শনীটি সহায়ক ভূমিকা পালন করছে।
বাংলাদেশ খাদ্য উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনের জন্য উন্নয়নশীল বিশ্বে একটি ভালো উদাহরণ স্থাপন করেছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।
তিনি বলেন, আবাদি জমিতে বিশাল জনসংখ্যার চাপ সত্ত্বেও দেশ সাম্প্রতিক সময়ে সফলভাবে কৃষিজমি বহুগুণ বৃদ্ধি করেছে।
বাসস/কেইউসি/অনু-এসই/২২৪৫/-এইচএন