চলচ্চিত্র মানবিক মূল্যবোধ রক্ষা করতে পারে : ড. হাছান মাহমুদ

449

ঢাকা, ১৯ জানুয়ারি, ২০২০ (বাসস) : তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ আধুনিক সভ্যতার অগ্রগতির সাথে মানুষ ক্রমশ যান্ত্রিক হয়ে যাচ্ছে উল্লেখ করে বলেছেন, চলচ্চিত্র বর্তমানে অবক্ষয়ের সম্মুখীন মানবিক মূল্যবোধ সুরক্ষায় অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে পারে।
তথ্যমন্ত্রী আজ সন্ধ্যায় রাজধানীর জাতীয় জাদুঘরে নয় দিনব্যাপী অষ্টাদশ ঢাকা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসববের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতাকালে একথা বলেন।
সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ম হামিদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন।
ড. হাছান জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে বলেন, বঙ্গবন্ধু দেশে চলচ্চিত্রের সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা প্রতিষ্ঠা করেন। সেই ১৯৫৭ সালে শিল্প ও বাণিজ্যমন্ত্রী হিসেবে বঙ্গবন্ধু প্রাদেশিক পরিষদে চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশন বিল উত্থাপন করেন এবং তা পাস হয়। এভাবে বাংলাদেশে চলচ্চিত্র শিল্প যাত্রা শুরু করে।
মন্ত্রী বলেন, ‘চলচ্চিত্র আমাদের হাসায়, কাঁদায়, আমাদের মধ্যে আনন্দ-উল্লাস সঞ্চার করে। কখনো কখনো এটি আমাদের মনের গভীরে একটি স্থায়ী দাগ কাটে, যা কখনো মুছে ফেলা যায় না।’
এবারের উৎসবের প্রতিপাদ্য ছিল – ‘নান্দনিক চলচ্চিত্র, মননশীল দর্শক, আলোকিত সমাজ’।
ড. হাছান এ প্রসঙ্গে বলেন ‘এটি সুস্পষ্ট যে, ‘নান্দনিক চলচ্চিত্র, মননশীল দর্শক আমাদের একটি আলোকিত সমাজের দিকে চালিত করে।’ ড. হাছান এ উৎসবের পৃষ্ঠপোষক ও আয়োজকদের তাদের অব্যাহত প্রচেষ্টা ও সাফল্যের জন্য ধন্যবাদ জানান।
সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ বলেন, ‘আমাদের তরুণ প্রজন্মকে চলচ্চিত্র নির্মাণে উৎসাহিত করতে হবে। আর তখনই এ শিল্প এগিয়ে যাবে।’
উৎসবে আফগানিস্তান, বেলজিয়াম, বসনিয়-হার্জেগোভিনা, চীন, ক্রোয়েশিয়া,প্রান্স, জার্মানি, ভারত, ইরান, লেবানন, মেক্সিকো, ফিলিপাইন, পোল্যান্ড, কাতার, শ্রীল্কংা, তুরস্ক,ও বাংলাদেশের প্রায় ১৫০টি চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হয়। বাংলাদেশের ‘ ন ডরাই’ বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে পুরস্কার লাভ করেছে।
ইরানের পরিচালক মিরকারিমী রেজার ক্যাস্টেল অব ড্রিমস এশিয়ান ক্যাটাগরিতে সেরা চলচ্চিত্রের পুরস্কার লাভ করে।
তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ সেরা চলচ্চিত্র পুরস্কার বিজয়ীদের হাতে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন।