বাসস ক্রীড়া-১৮ : ইংল্যান্ডের প্রয়োজন ২৫৫ রান; দক্ষিণ আফ্রিকার দরকার ৯ উইকেট

334

বাসস ক্রীড়া-১৮
ক্রিকেট-মেলবোর্ন-বক্সিং ডে টেস্ট
ইংল্যান্ডের প্রয়োজন ২৫৫ রান; দক্ষিণ আফ্রিকার দরকার ৯ উইকেট
সেঞ্চুরিয়ন, ২৮ ডিসেম্বর, ২০১৯ (বাসস) : সেঞ্চুরিয়ন টেস্ট জয়ের জন্য ইংল্যান্ডের প্রয়োজন ২৫৫ রান। আর দক্ষিণ আফ্রিকার দরকার ৯ উইকেট। দ্বিতীয় ইনিংসে ২৭২ রানে অলআউট হয়ে ইংল্যান্ডকে জয়ের জন্য ৩৭৬ রানের টার্গেট দেয় প্রোটিয়ারা। জবাবে তৃতীয় দিন শেষে ১ উইকেটে ১২১ রান করেছে ইংলিশরা।
প্রথম ইনিংসে ২৮৪ রান করে ইংল্যান্ডকে ১৮১ রানে অলআউট করে দেয় স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকার বোলাররা। ফলে প্রথম ইনিংস থেকে ১০৩ রানের লিড পায় প্রোটিয়ারা। লিডকে সাথে নিয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে খেলতে নেমে দ্বিতীয় দিন শেষে ৪ উইকেটে ৭২ রান করেছিলো দক্ষিণ আফ্রিকা। এতে ৬ উইকেট হাতে নিয়ে ১৭৫ রানে এগিয়ে ছিলো তারা।
দিন শেষে ভ্যান ডার ডুসেন ১৭ ও এনরিচ নর্টি ৪ রানে অপরাজিত ছিলেন। নর্টি ৪০ রানে আউট হলেও হাফ-সেঞ্চুরি তুলে নেন ডুসেন। তাদের বিদায়ের পর দলের পক্ষে বড় ইনিংস খেলার চেষ্টা করেন উইকেটরক্ষক কুইন্ট ডি কক ও ভারনন ফিলান্ডার। তবে বেশি দূর যেতে পারেননি তারা। ফিলান্ডার ৪৬ ও ডি কক ৩৪ রান করে ফিরেন। ফলে ২৭২ রানের বেশি করতে পারেনি দক্ষিণ আফ্রিকা। ফলে ইংল্যান্ডের জয়ের লক্ষ্য দাড়ায় ৩৭৬ রান। বল হাতে এই ইনিংসে ইংল্যান্ডের পেসার জোফরা আর্চার ১০২ রানে ৫ উইকেট নেন। ৭ ম্যাচের ক্যারিয়ারে তৃতীয়বারের মত পাঁচ উইকেট নিলেন আর্চার। প্রোটিয়াদের বিপক্ষে প্রথম পাঁচ উইকেট নিলেন তিনি।
জয়ের জন্য ৩৭৬ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুভ সূচনা করে ইংল্যান্ড। দুই ওপেনার ররি বার্নস ও ডম সিবলি ২৮ ওভারে ৯২ রান যোগ করেন। সিবলিকে ব্যক্তিগত ২৯ রানে থামান দক্ষিণ আফ্রিকার স্পিনার কেশব মহারাজ। তবে হাফ-সেঞ্চুরি তুলে নেন বার্নস। দিন শেষে ১১টি চারে ১১২ বলে ৭৭ রানে অপরাজিত আছেন বার্নস। ১০ রানে অপরাজিত আছেন ডেনলি।
সংক্ষিপ্ত স্কোর :
দক্ষিণ আফ্রিকা : ২৮৪ ও ২৭২, ৬১.৪ ওভার (ডুসেন ৫১, ফিলান্ডার ৪৬, আর্চার ৫/১০২)।
ইংল্যান্ড : ১৮১ ও ১২১/১, ৪১ ওভার (বার্নস ৭৭*, সিবলি ২৯, মহারাজ ১/১৬)।
বাসস/এএসজি/এএমটি/২১৫০/স্বব