মুজিববর্ষকে সামনে রেখে বগুড়ায় দুর্যাগসহনীয় ঘর ও মুজিব কেল্লা

236

বগুড়, ১২ডিসেম্বর, ২০১৯ (বাসস) : মুিজববর্ষকে সমনে রেখে বগুড়াসহ সারাদেশে ব্যাপক উন্নয়ন কর্মসূচি হাতে নিয়েছে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়। বগুড়ায় এ কাজগুলোর মধ্যে রয়েছে দুর্যোগ সহনীয় ঘর, মুজিব কেল্লা, আশ্রায়ণ কেন্দ্র ব্রিজ, হেরিংবোন রাস্তা।
জেলা ত্রাণও পুনর্বাসন কর্মকর্তা আজার আলী মন্ডল জানান, এ প্রকল্পগুলো ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে শেষ করতে হবে। দুর্যোগসহনীয় ঘর, মুজিব কেল্লা, আশ্রায়ণ কেন্দ্র ব্রিজ, হেরিংবোন রাস্তা ১৭ মার্চের মধ্যে হস্তান্তর করা হবে।
তিনি আরো জানান, জেলায় ২০১৯-২০ অর্থবছরে ২৮৮ টি দুর্যোগ সহনীয় ঘর নির্মাণ করা হবে।এবার প্রতিটি ঘরের প্রতিটির জন্য ব্যয় হবে প্রায় ৩ লাখ টাকা। ১৮-১৯ অর্থ বছরে ১৭৮টি দুর্যোগ সহনীয় ঘর র্নিমাণ করা হয়।
জেলায় মুজিব কেল্লার হবে মোট ৭টি। এর মধ্যে সারিয়াকন্দিতে ৪ টি এবং সোনাতলায় ৩টি মুজিব কেল্লা নির্মাণ করাহবে। মুজিব কেল্লাগুলো ৩ থেকে ৭ একরের জমিতে নির্মাণ করা হবে। ১৫ ফুট উঁচু ২তলা আধুনিক বিল্ডিং হবে। বন্যাকবলিত অঞ্চলে মুজিব কেল্লা নির্মাণ করা হবে। এর উপর তলায় মানুষ আশ্রয় নেবে এবং নিচ তলায় গবাদি পশু রাখার ব্যবস্থা থাকবে। সেখানে গবাদি পশুর খাওয়ার ব্যবস্থা থাকবে বলে জানান জেলা ত্রাণও পুনর্বাসন কর্মকর্তা । মুজিব কেল্লার চারিদিক দিয়ে ফুলের বাগান থাকবে। প্রসস্ত রাস্তা থাকবে।
বন্যার আশ্রায়ণ কেন্দ্র নির্মণ করা হবে ৭টি। এর মধ্যে শেরপুরে ২টি, সারিয়াকান্দির শোপচাতে ১টি, গাবতলীর নাড়–য়ামালায় ১টি ও একই উপজেলার তিয়রপাড়াতে ১টি এবং সোনাতলায় ১টি এগুলো নির্মাণ করতে ব্যয় হবে প্রায় ৩ কেটি টাকা।
জেলায় ছোট বড় ব্রিজ নির্মাণ করা হবে ১৭৬ টি, প্রায় ৫০ কিলোমিটার রাস্তা হেরিরংবোন করা হবে।