কাভানির জোড়া গোলে রোনাল্ডোর পর্তুগালের বিদায়

178

সোচি (রাশিয়া), ১ জুলাই ২০১৮ (বাসস) : স্ট্রাইকার এডিনসন কাভানির জোড়া গোলে উরুগুয়ের কাছে হেরে রাশিয়া বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিল ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডোর পর্তুগাল। নক আউট পর্বের দ্বিতীয় ম্যাচে গতরাতে উরুগুয়ে ২-১ গোলে হারিয়েছে পর্তুগালকে। এই জয়ে টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় দল হিসেবে কোয়ার্টারফাইনালে উঠলো লুইস সুয়ারেজের উরুগুয়ে। শেষ আটে তাদের প্রতিপক্ষ ফ্রান্স। আগামী ৬ জুলাই টুর্নামেন্টের প্রথম কোয়ার্টার ফাইনালে মুখোমুখি হবে ফ্রান্স ও উরুগুয়ে। কারন এর আগে নক আউট পর্বের প্রথম ম্যাচে ফ্রান্স ৪-৩ গোলে হারায় আর্জেন্টিনাকে।
সোচিতে অনুষ্ঠিত ম্যাচের ৭ মিনিটে প্রথম গোল করে উরুগুয়েকে এগিয়ে দেন স্ট্রাইকার কাভানি। বা-প্রান্ত দিয়ে সুয়ারেজের ক্রস থেকে দুর্দান্ত এক হেডে পর্তুগালের জালে বল পাঠান কাভানি (১-০)। এই গোলের পর বল দখলের চেষ্টায় আগ্রাসী হয়ে উঠে পর্তুগাল। ম্যাচে ফেরাই তখন একমাত্র লক্ষ্য ছিলো পর্তুগীজদের।
তবে ম্যাচের ১১ মিনিটে প্রথম আক্রমনে যায় পর্তুগাল। ডিফেন্ডার রাফায়েল গুয়েরেইরোর ক্রস থেকে ভালোভাবে হেড নিতে পারেননি রক্ষণভাগের আরেক খেলোয়াড় হোসে ফন্তে। ফলে গোল সুযোগ নষ্ট করে পর্তুগাল।
এক মিনিট আবারো গোলে সুযোগ নষ্ট করে পর্তুগাল। এবারও বলের যোগানদাতা গুয়েরেইরো। তার পাস থেকে বল পেয়ে উরুগুয়ের গোলমুখে শট নিয়েছিলেন পর্তুগালের সেরা তারকা রোনাল্ডো। কিন্তু সেটি রুখে দেন উরুগুয়ের গোলরক্ষক ফার্নান্দো মুসলের।
গোল মিসের ধারাবাহিকতা প্রথমার্ধে অব্যাহত রাখে পর্তুগাল। গোল পাবার মত চারটি সুযোগ হাতছাড়া করে তারা। এরমধ্যে দু’টিই ছিলো মিডফিল্ডার গনসালো গুয়েডেসের। শেষ পর্যন্ত ১-০ গোলে পিছিয়ে থেকেই ম্যাচের প্রথমার্ধ শেষ করতে হয় পর্তুগালকে।
গোলের ব্যবধানে পিছিয়ে থাকলেও বল দখলের লড়াইয়ে কিন্তু বেশ এগিয়ে ছিলো পর্তুগালই। প্রায় ৬৫ শতাংশ বল দখলে রাখতে পেরেছিলো রোনাল্ডো-পেপেরা।
যার ধারাবাহিকতায় দ্বিতীয়ার্ধে মাঠে বল গড়ানোর ১০ মিনিটের মধ্যে ম্যাচে সমতা আনে পর্তুগাল। বাঁ-প্রান্ত দিয়ে উরুগুয়ের বিপদ সীমানায় বলকে ক্রস করেন গুয়েরেইরো। উড়ে আসা সেই বলে মাথা ছুইয়ে গোল আদায় করে নেন ডিফেন্ডার পেপে। ফলে ম্যাচের ৫৫ মিনিটে ১-১ সমতা আনতে পারে পর্তুগাল।
ম্যাচে সমতার আনন্দ বেশিক্ষণ করতে পারেনি পর্তুগাল। এবারও পর্তুগালের আনন্দে বাঁধ সাধেন কাভানি। ৬২ মিনিটে মধ্যমাঠ থেকে বল নিয়ে পর্তুগালের গোলবারের দিকে এগিয়ে যাচ্ছিলেন মিডফিল্ডার রডরিগো বেনটানচার। কিন্তু বক্সে ঢোকার আগেই বাঁ-প্রান্তে থাকা প্রথম গোলের মালিক কাভানিকে পাস দেন বেনটানচার। বল পেয়ে পর্তুগালের জাল বরাবর ডানপায়ে দুর্দান্ত এক কোনাকুনি শট নেন কাভানি। আর সেই শটে বল গিয়ে আশ্রয় নেয় পর্তুগালের জালে। ২-১ গোলে ম্যাচে এগিয়ে যায় উরুগুয়ে।
এরপর ম্যাচের ফেরার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করে পর্তুগাল। ৭৮ মিনিটে মিডফিল্ডার উইলিয়াম ক্যারাভালের পাস থেকে বল নিয়ে উরুগুয়ে গোলমুখে শট নিয়েছিলেন রোনাল্ডো। কিন্ত সেটি উরুগুয়ে ডিফেন্ডার দিয়েগো গোডিন ফিরিয়ে দেন।
৮৫ মিনিটে মিডফিল্ডার ম্যানুয়েল ফার্নান্দেসের শট দৃঢ়তার সাথে রুখে দিয়ে উরুগুয়ে চালকের আসনে রাখেন গোলরক্ষক মুসলেরা। শেষ পর্যন্ত নিজেদের দ্বিতীয় গোলটি করতেই পারলো না পর্তুগাল। আর ২-১ ব্যবধানে ম্যাচ জিতে কোয়ার্টারফাইনালের টিকিট কাটে উরুগুয়ে। এই নিয়ে সপ্তমবারের মত শেষ আটে উঠলো ১৯৩০ ও ১৯৫০ সালের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন উরুগুয়ে।