বাসস ক্রীড়া-৪ : ৪০ বছর পর বিশ্বকাপে দ্বিতীয় জয় তিউনিশিয়ার

230

বাসস ক্রীড়া-৪
ফুটবল-ইংল্যান্ড-বেলজিয়াম
৪০ বছর পর বিশ্বকাপে দ্বিতীয় জয় তিউনিশিয়ার
সারানস্ক (রাশিয়া), ২৯ জুন ২০১৮ (বাসস) : ‘জি’ গ্রুপে নিজেদের শেষ ম্যাচে তিউনিশিয়া ২-১ গোলে হারিয়েছে পানামাকে। এই গ্রুপ থেকেই আগেই শেষ ষোলোতে খেলার পথ থেকে ছিটকে পড়েছিলো তিউনিশিয়া ও পানামা। তবে জয় দিয়ে বিশ্বকাপ শেষ করতে পারলো তিউনিশিা। তাই এই জয়ে ৩ খেলায় ৩ পয়েন্ট নিয়ে ‘জি’ গ্রুপে তৃতীয়স্থান পেলে তিউনিশিয়া। সমানসংখ্যক ম্যাচে কোন পয়েন্ট না পাওয়ায় গ্রুপে চতুর্থ স্থানেই শেষ করতে হলো পানামাকে।
গ্রুপ পর্বে নিজেদের প্রথম দু’ম্যাচেই হেরে যায় তিউনিশিয়া ও পানামা। তাই গ্রুপ পর্বে তিউনিশিয়া ও পানামার ম্যাচটি ছিলো গুরুত্বহীন। তবে জয় দিয়ে বিশ্বকাপ শেষ করার লক্ষ্য ছিলো তাদের। সেখানে সফলই হয়েছে তিউনিশিয়া।
তবে ম্যাচে প্রথম গোল পায় পানামা। তবে আত্মঘাতি। ম্যাচের ৩৩তম মিনিটে পানামার ১৯ বছর বয়সী তরুণ মিডফিল্ডার হোসে লুইস রদ্রিগেজের জোরালো শট তিউনিশিয়ার ডিফেন্ডার ইয়াসিন মেরিয়াহর গায়ে লেগে বল জালে প্রবেশ করলে ১-০ গোলে এগিয়ে যায় পানামা।
এরপর ম্যাচের ৫৩তম মিনিটে সমতা আনে তিউনিশিয়া। স্ট্রাইকার নাইম সিলতি পানামার বক্সের ভেতর থাকা সতীর্থ ওয়াহবি খাজরিকে পাস দেন। খাজরি বল বাড়িয়ে দেন বেন ইউসেফের দিকে। বল পেয়ে গোল করে দলকে সমতায় আনেন ইউসেফ।
এরপর ৬৬তম মিনিটে তিউনিশিয়াকে প্রথমবারের মত লিড এনে দেন খাজরি। উসামা হাদ্দাদির কাছ থেকে বল পেয়ে এবারের আসরে নিজের দ্বিতীয় গোল করেন খাজরি। তার গোলে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে যায় তিউনিশিয়া। বিশ্বকাপের ইতিহাসে তিউনিশিয়ার ফুটবল ইতিহাসে এক বিশ্বকাপে দুই গোল করা একমাত্র খেলোয়াড় এখন খাজরি।
তাই শেষ পর্যন্ত খাজরির গোলেই অবিস্মরনীয় জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে তিউনিশিয়া। এই জয়টি তাদের জন্য অবিস্মরনীয়ই। কারন ১৯৭৮ সালের পর বিশ্বকাপের দ্বিতীয়বারের মত জয়ের স্বাদ নিলো তারা। ১৯৭৮ বিশ্বকাপে অভিষেক হয় তিউনিশিয়ার। ঐ আসরে মেক্সিকোকে ৩-১ গোলে হারিয়ে প্রথম জয় পেয়েছিলো আফ্রিকার দেশটি। এরপর তিনবার বিশ্বকাপ খেললেও কোন ম্যাচই জিততে পারেনি তারা। অবশেষে এবারের আসরে দ্বিতীয় জয়ের দেখা পেল তিউনিশিয়া।
বাসস/এএমটি/১০০৫/স্বব