বাসস বিদেশ-৪ : যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্ট স্থগিত করার সিদ্ধান্ত ‘অবৈধ’: সুপ্রিম কোর্ট

140

বাসস বিদেশ-৪
ব্রিটেন-ইইউ
যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্ট স্থগিত করার সিদ্ধান্ত ‘অবৈধ’: সুপ্রিম কোর্ট
লন্ডন, ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ (বাসস ডেস্ক) : ব্রিটেনের সুপ্রিম কোর্ট ব্রেক্সিট ইস্যুতে দেশটির প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের পার্লামেন্ট স্থগিত করার সিদ্ধান্তকে মঙ্গলবার ‘অবৈধ’ বলে রায় দিয়েছে। আদালত বরিসের সিদ্ধান্তকে খারিজ করে দিয়ে জানায়, এটা বেআইনী এবং এর কোন কার্যকারীতা নেই।
এদিকে মঙ্গলবার হাউস অব কমনস স্পিকার জন বার্কো বলেন, সুপ্রিম কোর্ট প্রধামন্ত্রীর সিদ্ধান্তকে অবৈধ আখ্যায়িত করে খারিজ করে দেয়ার পর ব্রিটেনের পার্লামেন্টে বুধবার তার কার্যক্রম শুরু করতে যাচ্ছে। খবর বার্তা সংস্থা এএফপি’র।
এদিকে ইউরোপীয় আইনপ্রণেতারা মঙ্গলবার ব্রিটিশ সুপ্রিম কোর্টের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে এই আদেশকে গণতন্ত্রের বিজয় বলে আখ্যায়িত করেছেন।
এ মাসের শুরুতে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন পাঁচ সপ্তাহের জন্য পার্লামেন্ট অধিবেশন স্থগিত করেন।
তিনি বলেছিলেন, তার সরকারের নুতন নীতি পার্লামেন্টে রাণীর ভাষণের মাধ্যমে তুলে ধরার জন্য এই সময় প্রয়োজন।
কিন্তু জনসনের বিরোধীরা তখন অভিযোগ করেছিলেন, প্রধানমন্ত্রী আসলে পার্লামেন্টের কন্ঠরোধ করতে চাইছেন যাতে তার ব্রেক্সিট পরিকল্পনা নিয়ে পার্লামেন্টের কাছে জবাবদিহি করতে না হয়।
সুপ্রিম কোর্টের প্রেসিডেন্ট লেডি হেল বলেন, ‘ব্রিটেনের গণতন্ত্রের মৌলিক বিষয়গুলোর ওপর প্রধানমন্ত্রীর এই পদক্ষেপের যথেষ্ট প্রভাব ছিল ।’
তিনি বলেন, ‘ব্রিটেনের রাণীকে পার্লামেন্ট স্থগিত রাখার পরামর্শ দেয়া ছিল বেআইনি। কারণ কোন যুক্তিসঙ্গত কারণ ছাড়াই এর মাধ্যমে পার্লামেন্টকে তার সাংবিধানিক দায়িত্ব পালনের ক্ষমতায় বাধা দেয়া হয়েছে।’
সুপ্রিম কোর্টের মোট ১১ জন বিচারক সর্বসম্মতভাবে এই রায় দিয়েছেন, যাকে সাংবিধানিক, আইনী ও রাজনৈতিকভাবে খুবই ঐতিহাসিক এক রায় বলে বিবেচনা করা হচ্ছে।
প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের জন্য এই রায় একটি বড় ধরনের ধাক্কা। কারণ এর ফলে বিরোধী দলগুলো তার পদত্যাগের দাবি জানিয়েছে।
বাসস/কেএআর/১৮৫০/ কেএমকে