মুদ্রানীতি উচ্চ প্রবৃদ্ধি অর্জনে সহায়ক হবে : বিশিষ্টজনদের অভিমত

265

ঢাকা,২২ সেপ্টেম্বর,২০১৯ (বাসস) : বিশিষ্ট ব্যাংকার ও অর্থনীতিবিদরা মনে করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের নতুন মুদ্রানীতি (২০১৯-২০) উচ্চ প্রবৃদ্ধি অর্জনে সহায়ক হবে এবং চলতি অর্থবছরের বাজেট সরকারের সামষ্টিক লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে কার্যকর ভূমিকা রাখবে। তবে মুদ্রানীতি ও বাজেটের লক্ষ্য অর্জনে ব্যাংকের সহায়ক ভূমিকা জরুরী।
রোববার রাজধানীর মিরপুরে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্ট (বিআইবিএম) মিলনায়তনে জাতীয় ‘বাজেট এবং মুদ্রানীতি (২০১৯-২০) : ব্যাংকিং খাতের ভূমিকা’ শীর্ষক এক কর্মশালায় তারা এ কথা বলেন। কর্মশালায় ঘোষিত মুদ্রানীতি বিষয়ে দু’টি প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক (গবেষণা) ড. মো: আখতারুজ্জামান এবং বিআইবিএমের পরিচালক (প্রশিক্ষণ) অধ্যাপক ড. শাহ মো: আহসান হাবীব।
বিআইবিএম মহাপরিচালক মুহা. নাজিমুদ্দিনের সভাপতিত্বে কর্মশালায় সরকারি এবং বেসরকারি ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে সূচনা বক্তব্য দেন বিআইবিএমের অধ্যাপক মো. নেহাল আহমেদ। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এস এম মনিরুজ্জামান।
কর্মশালায় অন্যান্যের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের সাবেক অধ্যাপক ড. বরকত-এ-খোদা, বিআইবিএমের সুপারনিউমারারি অধ্যাপক হেলাল আহমদ চৌধুরী,অধ্যাপক ইয়াছিন আলি প্রমূখ বক্তব্য রাখেন।
অনুষ্ঠানে এস এম মনিরুজ্জামান বলেন,বিশ্বব্যাপী যখন ৪ দশমিক ১ শতাংশ প্রবৃদ্ধি সেখানে বাংলাদেশের জিডিপি প্রবৃদ্ধি ৮ দশমিক ১৩ শতাংশ। রফতানির প্রবৃদ্ধি প্রায় সাড়ে শতাংশ। আরও উচ্চ প্রবৃদ্ধির বিবেচনায় বাজেট ঘোষণা করেছে সরকার।
ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন,উচ্চ প্রবৃদ্ধির বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে নতুন মুদ্রানীতি ঘোষণা করা হয়েছে। বেসরকারি খাত বিনিয়োগের জন্য পর্যাপ্ত অর্থ পাবে। তবে উচ্চ প্রবৃদ্ধি এবং বিনিয়োগের জন্য মুদ্রানীতির বাইরে আরো কিছু বিষয় রয়েছে, সে সব ক্ষেত্রে সফলতা আসলে উচ্চ প্রবৃদ্ধি অর্জিত হবে।
অধ্যাপক ড. শাহ মো: আহসান হাবীব বলেন, সরকার বাজেটে মেগা প্রকল্প বাস্তবায়ন এবং উন্নয়নের ওপর বেশি জোর দিয়েছে। টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনের ওপর গুরুত্বারোপ করেন। এক্ষেত্রে ব্যাংকের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখার সুযোগ রয়েছে।