নিশ্চিত জয় হাতছাড়া করে ড্র করে শেষ ষোলোতে পর্তুগাল

225

সারানস্ক (রাশিয়া), ২৬ জুন, ২০১৮ (বাসস) : লিড নিয়ে তা ধরে রাখতে পারেনি পর্তুগাল। দ্বিতীয়ার্ধের ইনজুরি সময়ে গোল করে পর্তুগালের সাথে ১-১ ব্যবধানে ‘বি’ গ্রুপে নিজেদের শেষ ম্যাচটি ড্র করলো ইরান। ড্র করলেও শেষ ষোলো নিশ্চিত করেছে পর্তুগাল। ফলে ৩ খেলায় ৫ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ রানার্স-আপ হয়ে শেষ ষোলোতে উঠলো পর্তুগাল। ‘এ’ গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন উরুগুয়ের বিপক্ষে শেষ ষোলোতে লড়বে পর্তুগাল। সোচিতে আগামী ৩০ জুন বাংলাদেশ সময় রাত ১২টায় মুখোমুখি উরুগুয়ে ও পর্তুগাল।
২ খেলায় ১ জয় ও ড্র’তে ৪ পয়েন্ট নিয়ে শেষ ষোলোর পথে টিকে ছিলো পর্তুগাল। শেষ ষোলোর পথে টিকে ছিলো ইরানও। এজন্য জয় ছাড়া অন্য কোন পথ খোলা ছিলো না তাদের সামনে। তাই সারানস্কে শুরুতেই বল দখলের লড়াইটা বেশ ভালোভাবেই করে ইরান। এসময় পর্তুগালকে কিছুটা হিমশিম খেতে হয়।
তবে সময় গড়ানোর সাথে নিজেদের গুছিয়ে নিয়ে ম্যাচে ফিরে পর্তুগাল। তাই ১৮ মিনিটে গোলের সুযোগ মিস করেন পুর্তগাল। মিডফিল্ডার আদ্রিয়ান সিলভার কর্ণার থেকে হেড নিয়েছিলেন ডিফেন্ডার পেপে। কিন্তু সেটি গোলবারের পাশ দিয়ে কেটে যায়।
৪০ মিনিটে দলের সেরা তারকা ও অধিনায়ক ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডো গোলের সুযোগ হাতছাড়া করেন। ডিফেন্ডার হোসে ফন্তের পাস থেকে বল পেয়ে ইরানের গোলমুখে শট নিয়েছিলেন রোনাল্ডো। কিন্তু সেই শট রুখে দেন ইরানের গোলরক্ষক আলিরেজা বিয়েরানভ্যান্ড।
কিন্তু প্রথমার্ধের শেষ মিনিটে গোলের স্বাদ পায় পর্তুগাল। ইরানের কঠিন রক্ষণ দূর্গে ফাটল ধরিয়ে গোল আদায় করে নেন পর্তুগালের মিডফিল্ডার রিকার্ডো কুয়ারেসমা(১-০)। ফলে এই ব্যবধানে এগিয়ে থেকেই ম্যাচের প্রথমভাগ শেষ করে পর্তুগাল।
লিড পেলেও দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে থেকে গোলের জন্য মরিয়া হয়ে উঠে পর্তুগাল। কিন্তু আক্রমনভাগের খেলোয়াড়দের ভুলে গোলের ব্যবধান দ্বিগুন করতে পারেনি তারা।
তবে ৫০ মিনিটে ইরানের ডি-বক্সে ফাউলের শিকার হন রোনাল্ডো। ফলে টিভি রেফারির সহায়তায় পেনাল্টি পায় পর্তুগাল। পেনাল্টি থেকে গোল করতে পারেননি রোনাল্ডো। এবারের বিশ্বকাপে পেনাল্টি মিস করা পঞ্চম খেলোয়াড় রোনালদো।
এছাড়া, রাশিয়া বিশ্বকাপে এটি ১৯তম পেনাল্টি। এক বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ পেনাল্টির রেকর্ড এটি। এর আগের রেকর্ডটি ছিলো ১৮টি পেনাল্টি। ১৯৯০, ১৯৯৮ ও ২০০২ সালের বিশ্বকাপের ১৮টি করে পেনাল্টি হয়েছিলো।
৬৬ মিনিটে আবারো গোল করার সুযোগ হাতছাড়া করেন রোনাল্ডো। আসলে ভাগ্য তার সাথে ছিলো না। মিডফিল্ডার হোয়াও মারি’র যোগান দেয়া বল কাজে লাগাতে পারেননি রোনাল্ডো। তাই নিশ্চিত ড্র’র দিকেই এগিয়ে যাচ্ছিলো ম্যাচটি।
নির্ধারিত সময় শেষে ম্যাচ গড়ায় ইনজুরি সময়ে। ইনজুরি সময়ের তৃতীয় মিনিটে টিভি রেফারির সহায়তায় পেনাল্টি থেকে গোল করেন ইরানের স্ট্রাইকার কারিম আনসারিফার্ড। তার গোলে নিশ্চিত হার থেকে রক্ষা পায় ইরান। ফলে জয় বঞ্চিত হয় পর্তুগাল। ড্র হলেও শেষ ষোলোর টিকিট পেতে সমস্যা হয়নি পর্তুগালের। ড্র করে ৪ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপে তৃতীয় হয় ইরান। শেষ ষোলোতে উঠার সুযোগ হাতছাড়া করে তারা।