‘বঙ্গবন্ধু নদী পদক’ প্রদানের জন্য প্রাথমিকভাবে ২৩টি আবেদনপত্র মনোনীত : নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

337

ঢাকা, ৯ সেপ্টেম্বর ,২০১৯ (বাসস) : ‘বঙ্গবন্ধু নদীপদক’ প্রদানের জন্য প্রাথমিকভাবে ২৩টি আবেদনপত্র মনোনীত করা হয়েছে।
আজ নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী মন্ত্রণালয়ের সভা কক্ষে বঙ্গবন্ধু নদীপদক প্রদানের জন্য জাতীয় মনোনয়ন কমিটির এক সভায় এ কথা জানান।
নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ আবদুস সামাদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে মনোনয়ন কমিটির সদস্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও বিভাগের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।
প্রতিবছর সেপ্টেম্বর মাসে কিংবা সুবিধামত সময়ে ‘বিশ্ব নৌদিবস’ এর দিন পদক প্রদান করা হবে। নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় পুরস্কারের সংখ্যা ও মূল্যমান বাস্তবতার নিরিখে পরিবর্তন করতে পারবে। প্রধানমন্ত্রী ‘বঙ্গবন্ধু নদীপদক নীতিমালা-২০১৯’ অনুমোদন করেছেন।
সভায় জানানো হয়, বঙ্গবন্ধু নদীপদক প্রদানের জন্য জাতীয় পর্যায়ে আটটি এবং বিভাগীয় পর্যায়ে ১৫টি আবেদনপত্র পাওয়া গেছে। এগুলোর মধ্য থেকে জাতীয় পর্যায়ে তিনটি এবং বিভাগীয় পর্যায়ে আটটি পদক প্রদান করা হবে। উপযুক্ত প্রার্থী পাওয়া না গেলে পদকের সংখ্যা কম হতে পারে। প্রাপ্ত আবেদনপত্র থেকে যোগ্য প্রার্থীর কার্যক্রম যাচাইয়ের জন্য নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় থেকে দু’জন করে কর্মকর্তা সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলো পরিদর্শন করবে। তারা তিন কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন পেশ করবে।
নদী রক্ষায় ‘বঙ্গবন্ধু নদীপদক’ জাতীয় পর্যায়ে ব্যক্তি/ প্রতিষ্ঠান, সরকারি, বেসরকারি ও স্বায়ত্বশাসিত সংস্থাকে বিশেষ অবদানের জন্য ১৮ (আঠার) ক্যারেট মানের ৫০ গ্রাম ওজনের একটি স্বর্ণপদক, নগদ ৭৫,০০০ (পঁচাত্তর হাজার) টাকা ও সার্টিফিকেট এবং বিভাগীয় পর্যায়ে ব্যক্তি/প্রতিষ্ঠান, সরকারি, বেসরকারি ও স্বায়ত্বশাসিত সংস্থাকে বিশেষ অবদানের জন্য ১৮ (আঠার) ক্যারেট মানের ৩০ গ্রাম ওজনের একটি স্বর্ণপদক, নগদ ৫০,০০০ (পঞ্চাশ হাজার) টাকা ও সার্টিফিকেট প্রদান করা হবে। বিভাগীয় পর্যায়ে একটি করে মোট আটটি এবং জাতীয় পর্যায়ে তিনটি পদক প্রদান করা হবে।
প্রতিবছর আন্তর্জাতিক নৌ-সংস্থা (আইএমও) সেপ্টেম্বরের শেষ সপ্তাহে বিশ্বব্যাপী সামুদ্রিক পরিবেশ, নৌযানের নিরাপত্তা এবং চলাচলের পথ সুগম করার লক্ষ্যে ‘বিশ্ব নৌ দিবস’ উদযাপন করে থাকে। এ বছর ২৬ সেপ্টেম্বর আইএমও কর্তৃক ‘বিশ্ব নৌ দিবস’ পালনের জন্য নির্ধারিত হয়েছে।
নৌদিবসে নদীর নাব্যতা রক্ষা, নদীর দখল ও দূষণ রোধে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে মনোনীত ব্যক্তি ও সংস্থাকে প্রদানের জন্য সরকার ‘বঙ্গবন্ধু নদীপদক’ প্রবর্তনের বিষয়ে কার্যক্রম গ্রহণ করে।
সারাদেশে বিশ্ব নৌ দিবস উদযাপন এবং ‘বঙ্গবন্ধু নদীপদক’ প্রদানের মাধ্যমে নদী রক্ষায় সকলের ব্যাপক অংশগ্রহণ ও অংশিদারিত্ব সৃষ্টি করার লক্ষ্যে এ বছরই ‘বিশ্ব নৌ দিবসে’ প্রথমবারের মতো ‘বঙ্গবন্ধু নদীপদক’ প্রদানের জন্য কার্যক্রম গ্রহণ করা হয় বলে সভায় জানানো হয়েছে।