বাসস দেশ-২৮ : আবু হেনার ক্যারিয়ার বৈচিত্রময় : গ্রন্থ প্রকাশনা অনুষ্ঠানে বক্তারা

320

বাসস দেশ-২৮
প্রকাশনা-অনুষ্ঠান
আবু হেনার ক্যারিয়ার বৈচিত্রময় : গ্রন্থ প্রকাশনা অনুষ্ঠানে বক্তারা
ঢাকা, ২৭ জুলাই, ২০১৯ (বাসস) : সাবেক প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) মোহাম্মদ আবু হেনা একজন বৈচিত্রময় ক্যারিয়ার সম্পন্ন মানুষ। তৃণমূল থেকে কর্মকান্ড শুরু করে সরকারের উচ্চ পর্যায়ে দায়িত্ব পালন করেও তিনি মানুষের জন্য কাজ করেছেন।
রাজধানীর ফার্মগেটে জুট ডাইভারসিফিকেশন প্রমোশন সেন্টার (জেডিপিসি) মিলনায়তনে আজ মোহাম্মদ আবু হেনার কর্মময় জীবন নিয়ে লেখা ‘মোহাম্মদ আবু হেনা জীবন ও কর্ম’ গ্রন্থের প্রকাশনা অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন।
আবু হেনার সহকর্মী, বন্ধু-বান্ধব, ছাত্র, আত্মীয়-স্বজনসহ মোট ৮৭ জন এই গ্রন্থে তার সম্পর্কে লিখেছেন।
ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ড. কে এম মহসিনের সভাপতিত্বে প্রকাশনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সাবেক অর্থমন্ত্রী এম. সাইদুজ্জামান। বিশেষ অতিথি ছিলেন দুদকের সাবেক চেয়ারম্যান মো. বদিউজ্জামান, সাবেক মুখ্য সচিব শাহ মোহাম্মদ ফরিদ, সাবেক সচিব ও রাষ্ট্রদূত খাইরুল আনাম, বারি’র সাবেক মহাপরিচালক ড. এমএ মাজেদ ও সংসদ সদস্য এডভোকেট খোদেজা নাসরিন আক্তার হোসেন।
হাবাসপুর-বাহাদুরপুর হাইস্কুল প্রাক্তন ছাত্র সমিতির এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
আবু হেনার কর্মময় জীবনের উপর আলোকপাত করে এম. সাইদুজ্জামান বলেন, মোহাম্মদ আবু হেনার কর্মকান্ড শুরু হয়েছে তৃণমূল থেকে। সরকারি কর্মকর্তা হিসেবে মানুষের কল্যাণের জন্য তিনি কাজ করেছেন এবং এখনো করছেন। তিনি ৭টি মন্ত্রণালয়ে বিভিন্ন স্তরে কাজ করেছেন। এটা আমাদের দেশের জন্য দুর্লভ। দেশের কর্মকান্ডের পাশাপাশি বিদেশেও রাষ্ট্রদূত হিসেবে তার কর্মজীবন সমৃদ্ধ করেছেন।
তিনি বলেন, মোহাম্মদ আবু হেনা যখন প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে কাজ করেন, তখন দেশে রাজনৈতিক অস্থিরতা থাকলেও তার সম্পর্কে কেউ বিরূপ মন্তব্য করতে পারেননি। কারণ তিনি সততা, নিরপেক্ষতা ও ন্যায়ের আদর্শকে সামনে রেখে দায়িত্ব পালন করেছেন।
তিনি পাবলিক সার্বিসে কাজ করার পরও ব্যক্তি জীবনে নিজ এলাকার মানুষের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন।
আবু হেনা বলেন, ‘সারাবিশ্বের দিকে তাকালে নিজের জীবনকর্মকে অনেক ক্ষুদ্র মনে হয়। তবে যতই ক্ষুদ্র ও তুচ্ছ মনে হোক না কেন এই জীবনের কাছে আমি অনেক ঋণী।’
মোহাম্মদ আবু হেনা রাজবাড়ি জেলার পাংশা উপজেলার বাহাদুরপুর গ্রামে ১৯৩৭ সালে জন্মগ্রহণ করেন। প্রথম জীবনে তিনি শিক্ষকতা করেছেন। পরে ১৯৬৩ সালে তৎকালীন পাকিস্তান সিভিল সার্ভিসে (সিএসপি) যোগদান করেন। অবসর গ্রহণের পর ১৯৯৬ সালের ৯ এপ্রিল আবু হেনা সিইসি হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন।
বাসস/এএসজি/এসএস/এমএসএইচ/২০০৮/-এইচএন