বাসস ক্রীড়া-২ : টানা দ্বিতীয় জয়ে শেষ ষোলোর দ্বারপ্রান্তে স্বাগতিক রাশিয়া

236

বাসস ক্রীড়া-২
ফুটবল-মিশর-রাশিয়া
টানা দ্বিতীয় জয়ে শেষ ষোলোর দ্বারপ্রান্তে স্বাগতিক রাশিয়া
মস্কো (রাশিয়া), ২০ জুন ২০১৮ (বাসস) : ২১তম ফুটবল বিশ্বকাপে টানা দ্বিতীয় জয় তুলে নিলো স্বাগতিক রাশিয়া। গত রাতে টুর্নামেন্টে ১৭তম ও ‘এ’ গ্রুপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে রাশিয়া ৩-১ গোলে হারিয়েছে মিশরকে। এই জয়ে শেষ ষোলোর দ্বারপ্রান্তে পৌছে গেল রাশিয়া। নিজেদের প্রথম ম্যাচে রাশিয়া ৫-০ গোলে হারিয়েছিলো সৌদি আরবকে। অপরদিকে নিজেদের প্রথম ম্যাচে উরুগুয়ের কাছে ১-০ গোলে হারা মিশরের বিদায় ঘন্টা বেজে গেল।
সেন্ট পিটার্সবার্র্গে খেলতে নামার আগে রাশিয়া বা মিশরকে আলোচনা খুবই কম হয়েছে। আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে ছিলেন মিশরের স্ট্রাইকার ও গেল মৌসুমে ইংলিশ লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতা মোহাম্মদ সালাহ। অবশেষে ম্যাচ শুরুর এক ঘন্টা জানতে পারা যায় শুরু থেকে মিশরের একাদশে আছেন সালাহ।
কিন্তু সালাহকে ছাপিয়ে মাঠে নেমেই দুর্দান্ত গতির ফুটবল খেলতে শুরু করে রাশিয়া। নিজ মাঠের খেলার সুবিধার সাথে গ্যালারিতে দর্শকদের গর্জনে তেতে গিয়েছিলো স্বাগতিকরা। তাই প্রথম ১০ মিনিট বেশ চাপেই ছিলো মিশর।
তবে রাশিয়াকে পাল্টা চাপে ফেলতে খুব বেশি সময় লাগেনি মিশরের। ১০ মিনিট পরই রাশিয়ার রক্ষণভাগকে আক্রমনের চাপে ফেলে দেয় মিশর। কিন্তু গোলের দেখা পায়নি কোন দলই। আক্রমন-পাল্টা আক্রমন দিয়েই চললো পুরো প্রথমার্ধ। কিন্তু বলকে কোন জালেই প্রবেশ করতে পারেনি দু’দল। ৪-২-৩-১ একই ফরম্যাটে খেলে গোমড়া মুখ বিরতিতে যেতে হলো রাশিয়া ও মিশরকে।
ভাগ্য না থাকায় প্রথমার্ধে গুটি কয়েক আক্রমন থেকে গোল পায়নি রাশিয়া। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে ভাগ্য রাশিয়ার পক্ষে কথা বলেছে বেশ বেশ ভালভাবেই। ১৫ মিনিটের ব্যবধানে তিন গোল আদায় করে নেয় রাশিয়া।
গোল কিভাবে করতে তা অবশ্য করে দেখিয়েছে মিশরই। তবে সেটি ছিলো আত্মঘাতি গোল। ৪৭ মিনিটে রাশিয়ার মিডফিল্ডার রোমান জোবনিনের একটি শট সড়াতে গিয়ে ব্যর্থ হন মিশরের রক্ষণভাগের খেলোয়াড় আহমেদ ফাতি। ঠিক মত সড়াতে না পারলে তার হাঁটুতে লেগে বল চলে যায় মিশরের জালে। ফলে ফাতির আত্মঘাতি গোলে ম্যাচে প্রথমবারের মত এগিয়ে যায় রাশিয়া।
এরপর ৫৯ মিনিটে দারুন একটি সম্মলিত আক্রমন থেকে রক্ষণভাগের খেলোয়াড় মারিও ফার্নান্দেস বল নিয়ে মিশরের বক্সে ঢুঁকে পড়েন। সেখান থেকে মাইনাস করেন ডেনিশ চেরিশেভকে উদ্দেশ্যে করে। ঠিক জায়গায় দাঁড়িয়ে থাকা চেরিশভ ডান পায়ের বুদ্ধিদীপ্ত শটে গোল আদায় করেন নেন। এতেই ২-০ ব্যবধানে লিড নেয় রাশিয়া। এই গোলে এবারের আসরে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ স্কোরার পর্তুগালের ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডোর পাশে বসলেন চেরিশভ। দু’জনেরই গোল ৩টি করে।
৩ মিনিট পর রক্ষণভাগের ভুলে তৃতীয় গোল হজম করতে হয় মিশরকে। মাঝমাঠ থেকে উড়ে আসা একটি বল মিশরের বক্সের ভেতর পেয়ে যান আরটেম দিজিউবা। বুক দিয়ে বল নীচে নামিয়ে মিশরের এক খেলোয়াড়কে কাটিয়ে দুর্দান্ত শটে দিজিউবা বলকে আশ্রয় দেন প্রতিপক্ষের জালে। এতে ৩-০ গোলে এগিয়ে যায় রাশিয়া।
৬২ মিনিটেই তিন গোলে পিছিয়ে পড়েও ম্যাচে ফেরার দিবা স্বপ্ন দেখতে শুরু করে মিশর। তাই বল পেলেই দ্রুত রাশিয়ার সীমানায় আক্রমনের চেষ্টা চালায় তারা। কিন্তু মিশরের আশা পূরণ হতে দেয়নি রাশিয়ার রক্ষণদূর্গ।
তবে ৭৩ মিনিটে রাশিয়ার রক্ষণভাগের খেলোয়াড় প্রতিপক্ষের সেরা তারকা মোহাম্মদ সালাহকে ফাউল করলে ফ্রি-কিক পায় মিশর। কিন্তু এতে আপত্তি জানায় মিশর। ফলে ভিডিও রেফারির সহায়তায় পেনাল্টি অর্জন করে মিশর। সেই পেনাল্টি থেকে গোল করেন সালাহ। এতে ব্যবধান কমে দাড়ায় ৩-১এ। কিন্তু তাতে কোন লাভ হয়নি মিশরের ম্যাচ জিতেই মাঠ ছাড়ে রাশিয়া। এই জয়ে নিজেদের মাঠের বিশ্বকাপে শেষ ষোলোর পথে এক পা দিয়ে রাখলো রাশিয়া।
সামারাতে আগামী ২৫ জুন উরুগুয়ের বিপক্ষে ‘এ’ গ্রুপে নিজেদের শেষ ম্যাচ খেলবে রাশিয়া। একই দিন ভলগ্রোগাদে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচ খেলবে মিশর।
বাসস/এএমটি/১১০৫/ম্বব