মার্কিন কংগ্রেসম্যানের প্রস্তাব রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে সহায়ক হবে : তথ্যমন্ত্রী

489

ঢাকা, ১ জুলাই, ২০১৯ (বাসস) : তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, এক মার্কিন কংগ্রেসম্যানের মিয়ানমারকে মার্কিন সহায়তা বন্ধের প্রস্তাব রোহিঙ্গাদের তাদের নিজ বাসভূমিতে প্রত্যাবাসনে সহায়ক হবে।
তথ্যমন্ত্রী আজ সচিবালয়ে তার কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘আমি মনে করি, এই প্রস্তাব তাদের (রোহিঙ্গাদের) ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমার কর্তৃপক্ষের ওপর বাড়তি চাপ প্রয়োগ করবে।’
আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন, রোহিঙ্গারা মিয়ানমারের নাগরিক। সেখানকার সংসদেও তাদের প্রতিনিধিত্ব ছিল। অথচ এখন মিয়ানমার সরকার তাদের নাগরিকত্ব অস্বীকার করছে।
মার্কিন কংগ্রেসম্যান ব্র্যাডলি শারম্যানের মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের রোহিঙ্গা অধ্যুষিত অংশটি বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্ত করার প্রস্তাব সংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘এটি তার নিজ প্রস্তাব, আর কংগ্রেস এটি গ্রহণ করেনি। আমি এ ব্যাপারে কিছু বলতে চাই না।’
ড. হাছান রোহিঙ্গাদের আশু প্রত্যাবাসনের ওপর জোর দিয়ে বলেন, এ সংকট নিরসনে রোহিঙ্গাদের পূর্ণ মর্যাদা ও নিরাপত্তার সঙ্গে তাদের নিজ বাসভূমিতে ফিরিয়ে নিতে হবে।
২০১৭ সালে মিয়ানমার সামরিক বাহিনীর অভিযানের পর লাখ লাখ রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়।
বাজেটের ব্যাপারে বিএনপির মন্তব্য প্রসঙ্গে তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপি প্রতি বছর একইভাবে বাজেটের সমালোচনা করছে।
ড. হাছান বলেন, বিএনপি দেশে কোন উন্নয়ন দেখতে পায় না। অথচ বিশ্ব সম্প্রদায় বলছে বাংলাদেশ ও এর অর্থনীতি এগিয়ে যাচ্ছে।
এবারের বাজেটকে একটি চমৎকার বাজেট উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে জিডিপির আকার চার গুণ এবং বাজেটের আকার আট গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে।
তিনি বলেন, বাংলাদেশ বর্তমানে একটি খাদ্য-উদ্বৃত্তের দেশ।
শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ সফলভাবে জঙ্গিবাদ মোকাবেলা করেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ জঙ্গিবাদ মোকাবেলায় এখন বিশ্বে রোল মডেল।’
তথ্য সচিব আবদুল মালেক সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।