বাসস ক্রীড়া-১৫ : ঘুরে দাঁড়ানোর অঙ্গীকার আর্থারের

187

বাসস ক্রীড়া-১৫
আর্থার-অঙ্গীকার
ঘুরে দাঁড়ানোর অঙ্গীকার আর্থারের
নটিংহ্যাম, ১ জুন, ২০১৯ (বাসস/এএফপি) : পাকিস্তান কোচ মিকি আর্থার বলেছেন ‘হতাশাজনক’ শুরুর পরও বিশ্বকাপে ঘুরে দাঁড়াতে পারে দল।
গতকাল শুক্রবার ট্রেন্ট ব্রিজে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ফাস্ট বোলিংয়ের সামনে বিশ্বকাপে নিজেদের দ্বিতীয় সর্ব নি¤œ রানের রেকর্ড গড়ে পাকিস্তান। ২১.৪ ওভারে মাত্র ১০৫ রান করতে সক্ষম হয় আর্থারের শিষ্যরা।
জবাবে ৩৪ বল মোকাবেলায় চারটি চার এবং তিনটি ছক্কায় ক্রিস গেইলের ৫০ রানের সুবাদে মাত্র ১৩.৪ ওভারেই জয় তুলে নেয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ।
তবে এমন পরাজয়ের মাত্রাটা না এড়িয়ে গিয়ে আর্থার বলেন সব কিছুই তার দেখা খেলোয়াড়দের বিপক্ষে গেছে।
বার্তা সংস্থা এএফপি’কে আর্থার বলেন, ‘হ্যাঁ, এটা একটা হতাশাজনক শুরু.. মাঠে খেলোয়াড়দের প্রস্তুতি ছিল না। তবে আমরা অবশ্যই নিজেদের খোলস থেকে বেড়িয়ে আসব এবং শক্তভাবে ঘুরে দাঁড়াবো।
মূলত ওয়েস্ট ইন্ডিজের তিন বোলারের শট পিচ বলেই কুপোকাত হয়েছে পাকিস্তানী ব্যাটসম্যানরা।
ওশানে থমাসের ২৭ রানে ৪, জেসন হোলাডারের ৪২ রানে ৩ এবং আন্দ্রে রাসেলের ৪ রানে ২ উইকেট শিকারে নির্ধারিত ১০০ ওভারের অর্ধেকেই শেষ হয়ে যায় ম্যাচ।
ফখর জামান, ওযাহাব রিয়াজ এবং মোহাম্মদ হাফিজ ছাড়া কোন ব্যাটসম্যানই দুই অঙ্কের কোটা স্পর্শ করতে পারেননি।
আর্থার বলেন শট পিচ বলের বিপক্ষে যেমন আশা করছিলেন তেমটা তার ব্যাটসম্যানরা খেলতে পারেনি। এটা অত্যন্ত বেদনা দায়ক।
দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক খেলোয়াড় আর্থার বলেন, ‘আমরা জানতাম শট পিচ বল মোকাবেলা করতে হবে এবং এবং সে জন্য ভালভাবে প্রস্তুতিও নিয়েছিলাম। সুতরাং প্রস্তুতি নেয়া সত্ত্বেও এভাবে খেলা দেখাটা ছিল হতাশাজনক।’
এই ম্যাচ দিয়ে টানা ১১ ওয়ানডেতে পরাজিত হলো পাকিস্তান। তবে ওযাহাব রিয়াজ জানিয়েছেন ফাস্ট বল মোকাবেলায় তাদের মানসিক কোন বাঁধা ছিল না।
রিয়াজ বলেন,‘ শট বল আমরা ভাল খেলিনি। তবে গত সিরিজে দেখেছি শট বোলিংয়ের বিপক্ষে আমরা রান করতে পারি। কেউ যদি আমাদের বাউন্সার মারতে চায় তাতে আমাদের কোন সমস্যা নেই।’
তিনি আরো বলেন, ‘এটা মানসিক কোন বিষয় নয়। অতীতেও আমরা পরাজয় দেখেছি, আমাদের দরকার এ ধরনের অবস্থা থেকে বের হওযার একটা পন্থা খুঁজে বের করা।’
বাসস/এএফপি/স্বব/১৯৪৫/মোজা/নীহা