বাজিস-১২ : যশোরে বিশ্ব শিশুশ্রম প্রতিরোধ দিবস পালিত

606

বাজিস-১২
যশোর-শিশুশ্রম-প্রতিরোধ দিবস
যশোরে বিশ্ব শিশুশ্রম প্রতিরোধ দিবস পালিত
যশোর, ১২ জুন, ২০১৮ (বাসস) : ‘প্রজন্মের জন্য নিরাপত্তা ও সুস্বাস্থ্য’ (জেনারেশন : সেইফ অ্যান্ড হেলদি) প্রতিপাদ্যে নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে যশোরে বিশ্ব শিশুশ্রম প্রতিরোধ দিবস পালিত হয়েছে। কর্মসূচির মধ্যে ছিল ‘আমিই পারি- শিশুর প্রতি শারীরিক সহিংসতা বন্ধ করতে’ শীর্ষক সাক্ষরতা অভিযান, শিশুশ্রমে যুক্ত শিশুদের অংশগ্রহণে ‘শিশু ও বাল্য বিয়ে’ শীর্ষক কুইজ প্রতিযোগিতা, আলোচনসভা ও পুরস্কার বিতরণ।
শহরের সিসিটিএস অডিটোরিয়ামে মঙ্গলবার সকালে ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ কর্তৃক আয়োজিত এ কর্মসূচিতে প্রধান অতিথি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক হুসাইন শওকত বলেন, ২০৩০ সালের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রাকে সামনে রেখে ২০২৫ সালের মধ্যে শিশুশ্রম নিরসনে সম্প্রতি নতুন করে কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন করেছে শ্রম মন্ত্রণালয়। কর্মপরিকল্পনা অনুযায়ী জাতীয় পর্যায় থেকে জেলা-উপজেলা পর্যায়ে শিশুশ্রম নিরসনে কাজ চলছে।
বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা সাধন কুমার দাস ও কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর যশোরের উপ-মহাপরিদর্শক সৌমেন বডুয়া। সভাপতিত্ব করেন ওয়ার্ল্ড ভিশনের এরিয়া কো-অর্ডিনেটর আফরোজা খানম সুমি। মুক্ত আলোচনায় অংশ নেন, জেলা এফপিএবি কর্মকর্তা আবিদুর রহমান, যশোর পৌরসভার কাউন্সিলর জাহাঙ্গীর আহম্মেদ শাকিল, আদর্শ পৌর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সেলিম হোসেন, এডাব যশোরের সদস্য সচিব শাহজাহান নান্নু, মানবাধিকার কর্মী অ্যাডভোকেট তাহমিদ আকাশ, জীবনের জন্য প্রকল্পের প্রজেক্ট অফিসার সুজন চন্দ্র্র বিশ্বাস ও জাকিয়া সুলতানা প্রমুখ। সঞ্চালনা করেন ওয়ার্ল্ড ভিশনের জীবনের জন্য প্রকল্পের অ্যাডভোকেসি ও ট্রেনিং অফিসার অনিন্দিতা বিশ্বাস। আলোচনা শেষে ‘আমিই পারি- শিশুর প্রতি শারীরিক সহিংসতা বন্ধ করতে’ শীর্ষক সাক্ষরতা অভিযানে শতাধিক ব্যক্তি সাক্ষর করেন।
কুইজ প্রতিযোগিতায় শিশুশ্রম থেকে উদ্ধার পাওয়া ৭৬ জন শিশু অংশ নেয়। প্রতিযোগিতায় বিজয়ী হয় যথাক্রমে আরমান খান, রাসেদুল ও চম্পা খাতুন। বিজয়ী ও অংশগ্রহনকারী প্রত্যেক শিশুকে স্মারক উপহার প্রদান করা হয়।
অনুষ্ঠানে বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, গণমাধ্যমকর্মী, যশোর সদরের বিভিন্ন ওয়েল্ডিং কারখানা, মোটর গ্যারেজসহ নানা প্রতিষ্ঠানের মালিক ও প্রতিনিধিরা অংশ নেন।
উল্লেখ্য শিশু অধিকার সুরক্ষা ও ঝুঁকিপূর্ণ শিশু শ্রম প্রতিরোধের লক্ষ্যে আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা (আইএলও) ২০০২ সাল থেকে জুন মাসের ১২ তারিখে দিবসটি পালন করা শুরু করে।
বাসস/সংবাদদাতা/মমআ/২০২০/মরপা