১০ বছরে চার লাখ দরিদ্র বিচারপ্রার্থীকে আইনি সহায়তা দিয়েছে সরকার : আইনমন্ত্রী

490

ঢাকা, ২৫ এপ্রিল, ২০১৯ (বাসস) : আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, বিগত ১০ বছরে তিন লাখ ৯৩ হাজার ৭৯০ জন দরিদ্র বিচারপ্রার্থীকে আইনি সহায়তা দিয়েছে সরকার।
আর্থিকভাবে অসচ্ছল, সহায়-সম্বলহীন এবং নানাবিধ আর্থ-সামাজিক কারণে বিচার পেতে অসমর্থদের জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থার মাধ্যমে আইন মন্ত্রনালয় এই সহায়তা প্রদান করেছে।
আইনমন্ত্রী বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে ‘জাতীয় আইনগত সহায়তা দিবস’ ২০১৯ উপলক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান। আগামী ২৮ এপ্রিল সপ্তমবারের মতো এ দিবস পালন করা হবে। এবারে এ দিবসের প্রতিপাদ্য হলো ‘বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলায় শেখ হাসিনার অবদান, বিনামূল্যে লিগ্যাল এইডে আইনি সেবাদান।’
তিনি বলেন, খুশির খবর হলো ৭ম পঞ্চ বার্ষিক পরিকল্পনায় যেখানে ২০২০ সালে ৩৭ হাজার বিচারপ্রর্থীকে আইনগত সহায়তা প্রদানের লক্ষমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল। সেখানে কেবল ২০১৭-২০১৮ অর্থ বছরেই ৮২ হাজার বিচারপ্রার্থীকে আইনগত সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। ২০১৮-২০১৯ অর্থ বছরে ৯০হাজার বিচারপ্রার্থীকে আইনগত সহায়তা প্রদানের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়।
তিনি বলেন, লিগাল এইড কার্যক্রমকে গতিশীল ও সেবাবান্ধব করার লক্ষ্যে ঢাকায় জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থার (এনএলএএসও) প্রধান কার্যালয় স্থাপন করে এর অধীনে দেশের ৬৪টি জেলা সদরে জেলা লিগাল এইড অফিস স্থাপন করা হয়েছে। বর্তমানে এসব অফিসে একজন করে সিনিয়র সহকারী জজ অথবা সহকারী জজকে পূর্ণকালীণ লিগাল এইড অফিসার হিসেবে পদায়ন করা হয়েছে।
তিনি বলেন, ২০১৫ সালে সুপ্রিম কোর্টে লিগাল এইড অফিস স্থাপন করে সেখানে লিগাল এইড কার্যক্রম চালু করা হয়েছে। দরিদ্র ও সুবিধাবঞ্চিত শ্রমিকদের আইনগত অধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ঢাকা ও চট্টগ্রাম শ্রম আদালতে শ্রমিক আইন সহায়তা সেল চালু করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে দেশের সকল শ্রম আদালতে এই সেল চালু করা হবে।
‘জাতীয় আইনগত সহায়তা দিবস’ পালনের জন্য জাতীয় ও স্থানীয়ভাবে ব্যাপক কর্মসূচী গ্রহণ করা হয়েছে। আগামী ২৮ এপ্রিল সকাল সাড়ে দশটায় ঢাকাস্থ হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে জাতীয় আইনগত সহায়তা দিবসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন।