বাসস ক্রীড়া-১১ : সাইফউদ্দিনের বিধ্বংসী বোলিংয়ে আবাহনীর বড় জয়

185

বাসস ক্রীড়া-১১
ক্রিকেট-প্রিমিয়ার লিগ
সাইফউদ্দিনের বিধ্বংসী বোলিংয়ে আবাহনীর বড় জয়
ঢাকা, ১৫ এপ্রিল ২০১৯ (বাসস) : মিডিয়াম পেসার মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের আগুন ঝড়ানো বোলিং-এ বড় জয় দিয়ে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের সুপার সিক্স পর্ব শুরু করলো আবাহনী লিমিটেড। আজ সুপার সিক্সে প্রথম দিন ও নিজেদের প্রথম ম্যাচে আবাহনী ১৬৫ রানের ব্যবধানে হারিয়েছে প্রাইম দোলেশ্বর স্পোটিং ক্লাবকে। এই জয়ে ১২ খেলায় ৯ জয় ও ৩ হারে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে উঠে এলো আবাহনী। সমানসংখ্যক ম্যাচে ৭ জয় ও ৫ হারে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের পঞ্চমস্থানে থাকলো প্রাইম দোলেশ্বর।
মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে প্রথমে বোলিং করার সিদ্বান্ত নেয় প্রাইম দোলেশ্বর। দুই পেসার আবু জায়েদ ও ফরহাদ রেজা ইনিংসের শুরুতেই চেপে ধরেন আবাহনীকে। ১২ রান উঠতেই আবাহনীর প্রথম তিন ব্যাটসম্যানকে প্যাভিলিয়নে ফেরত পাঠান জায়েদ-রেজা। এরমধ্যে জায়েদ দু’টি উইকেট নেন। দুই ওপেনার ইনফর্ম জহিরুল ইসলাম ১, সৌম্য সরকার ২ ও ব্যাটিং-এ প্রমোশন নিয়ে তিন নম্বরে নামা মেহেদি হাসান মিরাজ ৫ রান করে ফিরেন।
২৮ বলের মধ্যে ৩ উইকেট হারিয়ে খাদের কিনারায় পড়ে যায় আবাহনী। সেখান থেকে দলকে তুলে আনার পরিকল্পনা করেন ভারতীয় ওয়াসিম জাফর ও নাজমুল হোসেন শান্ত। নিজেদের পরিকল্পনায় সফল হয়েছেন এ জুটি। প্রতিপক্ষের বোলিং লাইন-লেন্থ বুঝে ব্যাট করতে থাকেন তারা। তাই অবলীলায় রান জড়ো হচ্ছিলো আবাহনীর অ্যাকাউন্টে। এক পর্যায়ে দু’জনই হাফ-সেঞ্চুরি তুলে নেন।
কিন্তু দলীয় ১৫৮ রানে থেমে যায় জাফর-শান্ত জুটি। জুটিটি ভাঙ্গেন প্রাইম দোলেশ্বরের স্পিনার আরাফাত সানি। ৯৭ বলে ৬টি চারে ৭১ রান করা জাফরকে শিকার করেন সানি। চতুর্থ উইকেটে ১৪৬ রান দলকে উপহার দেন জাফর-শান্ত।
জাফরের মত ইনিংস বড় করার চেষ্টা করেও ব্যক্তিগত ৭০ রানে থেমে যান শান্ত। তার ৮৩ বলের ইনিংসে ৪টি চার ও ২টি ছক্কা ছিলো। দুই হাফ-সেঞ্চুরিয়ানের বিদায়ের পর মোহাম্মদ মিথুনের ৪১ ও বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার ২১ বলে ২৪ রানে ৪৯ ওভারে ২৫১ রানে অলআউট হয় আবাহনী। প্রাইম দোলেশ্বরের জায়েদ ৩টি ও রেজা-সাইফ হাসান ২টি করে উইকেট নেন।
জয়ের জন্য ২৫২ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে আবাহনীর পেসার সাইফউদ্দিনের আগুন ঝড়ানো বোলিং-এর মুখে পড়ে প্রাইম দোলেশ্বরের টপ-অর্ডার। ৩৪ রানে প্রাইম দোলেশ্বরের পাঁচ ব্যাটসম্যানকে প্যাভিলিয়নে ফেরত পাঠান সাইফউদ্দিন। এরপর আর ঘুড়ে দাঁড়াতে পারেনি প্রাইম দোলেশ্বর। কারণ আবাহনীর অন্যান্য বোলাররা প্রাইম দোলেশ্বরের বাকী বিপদ ঘটান। তাই ২৯ দশমিক ৪ ওভারে ৮৬ রানে গুটিয়ে যায় প্রাইম দোলেশ্বর। ৬ ওভারে ৯ রানে ৫ উইকেট নিয়ে ম্যাচ সেরা হয়েছেন সাইফউদ্দিন।
বাসস/এএসজি/এএমটি/১৯১৮/মোজা/স্বব