বাজিস-৯ : কালবৈশাখী ঝড়ে সিলেটে ব্যাপক ক্ষতি, মৌলভীবাজার একজনের মৃত্যু

73

বাজিস-৯
সিলেট- কালবৈশাখী
কালবৈশাখী ঝড়ে সিলেটে ব্যাপক ক্ষতি, মৌলভীবাজার একজনের মৃত্যু
সিলেট, ১৫ এপ্রিল, ২০১৯ (বাসস) : কালবৈশাখী ঝড়ে জেলায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। অন্যদিকে, মৌলভীবাজার জেলায় কালবৈশাখী ঝড়ে একজন মারা গেছেন।
আজ সোমবার সকাল ৮টা থেকে ৯টার মধ্যে সিলেট অঞ্চলের উপর দিয়ে ঝড় বয়ে যায়।
কালবৈশাখী ঝড়ে মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখা উপজেলার দক্ষিণভাগ উত্তর ইউনিয়নের গৌরনগর গ্রামে গাছের ডাল ভেঙে নিমার আলী (৬০) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়। তিনি এলাকার মৃত জোয়াদ আলীর ছেলে। স্থানীয় ইউপি সদস্য রিয়াজউদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
এদিকে, কালবৈশাখী ঝড়ে সিলেটের বিভিন্ন স্থানে বাড়িঘর লন্ডভন্ড হয়েছে।শহরতলীর লাক্কাতুয়া চা বাগান এলাকায় গাছে উপড়ে পড়লে আম্বরখানা-বিমানবন্দর সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এতে প্রায় দেড়ঘন্টা এ সড়কে যান চলাচলে বিঘœ ঘটে বলে জানিয়েছেন বিমানবন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গৌসুল হোসেন। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় গাছ সরানো হয়ে যানচলাচল স্বাভাবিক হয়।
ঝড়ের কারণে সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ, গোয়াইনঘাট, কানাইঘাট ও বালাগঞ্জে অসংখ্য কাঁচা বাড়িঘর ভেঙ্গে পড়েছে। ভেঙ্গে পড়েছে অসংখ্য গাছপালা, দোকানপাট, পোল্ট্রি খামার, কাঁচা ও আধাপাকা ঘর। ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। বিভিন্ন এলাকায় বিদ্যুৎ বিপর্যয় ঘটেছে।
বিদ্যুৎ বিভাগের সহকারি মহাব্যবস্থাপক মহিউদ্দিন বলেন, ফেঞ্চুগঞ্জে বেশ কিছু খুঁটি ও বিভিন্ন জায়গায় তার ছিঁড়ে গেছে। মেরামত কাজ শুরু হয়েছে।
সিলেটের গোয়াইনঘাট এলাকার হারুনুর রশিদ জানান, কালবৈশাখী ঝড়ে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় শত শত কাঁচা ও টিনের ঘরবাড়ি ধসে পড়েছে। গাছ উপড়ে পড়েছে। ওসমানীনগরের বিভিন্ন ইউনিয়নে কালবৈশাখী ঝড়ে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। স্থানীয় বাসিন্দাদের অনেকে জানান, ঝড়ের তান্ডবে বাড়িঘর ছাড়াও ফসলি গাছ-গাছালির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।
সিলেটে আবহাওয়া অধিদফতরের আবহাওয়াবিদ সাঈদ আহমদ চৌধুরী বলেন, উত্তর ও উত্তর পশ্চিম দিক থেকে ঝড়ের গতি ছিল প্রায় ৭০ কিলোমিটার। ৮টা ১৪ মিনিট থেকে ৯টার মধ্যে খুব অল্প সময়ে সিলেটে প্রায় ৩৫ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে।
সিলেটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মিডিয়া) মাহবুবুল আলম বলেন, সিলেটের বিভিন্ন স্থানে ঝড়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তবে সিলেট জেলায় কোন প্রাণহানির খবর পাওয়া যায়নি।
সিলেটের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) সন্দ্বীপ কুমার সিংহ জানান, ঝড়ে সবচেয়ে বেশি ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে জেলার বালাগঞ্জ উপজেলায়। অন্য উপজেলাগুলোতেও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নির্ধারনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারা কাজ করছেন।
বাসস/সংবাদদাতা/১৮৪৫/-এমকে